চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডিজিটাল আইনের উদ্বেগগুলো বিবেচনায় নেওয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়ার যে ধারাগুলো নিয়ে আপত্তি উঠেছে বা উদ্বেগ রয়েছে সেগুলো বিবেচেনায় নিয়ে এবং অংশীজনের প্রস্তাব পর্যালোচনা করে আইন চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা জানান।

‘বাংলাদেশের গণমাধ্যম এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: শঙ্কা ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক এ সেমিনারের আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডিইউএমসিজেএএ)।

তথ্যমন্ত্রী বলেন: ডিজিটাল আইন করার উদ্দেশ্য হচ্ছে বিশাল ডিজিটাল জগতের নিরাপত্তা বিধান করা। এখানে সাধারণ নাগরিকদের হয়রানির কোনো আশঙ্কা নাই।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন: সাংবাদিকরা সরকারের প্রতিপক্ষ নয় বরং পরিপূরক। তাই এই আইন নিয়ে সাংবাদিকদের উদ্বেগের কোনো কারণ নেই।

সাধারণ আইনে সাইবার অপরাধগুলো বিচার করতে অসুবিধা হওয়ার কারণেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন: ডিজিটাল আইনে নতুন কোনো অপরাধের কথা বলা হয়নি। যে অপরাধগুলো সাধারণভাবে সংঘঠিত হয় এবং দণ্ডবিধিতে উল্লেখ করা আছে, সেই অপরাধগুলো যদি ডিজিটাল ডিভাইস দিয়ে সংগঠিত হয়, তাহলে তা বিচার করতে অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছি আমরা। তাই ডিজিটাল আইন করা হচ্ছে।

এ আইনের দ্বারা সাধারণ নাগরিকরা যাতে হয়রানির শিকার না হন সেজন্য ডিজিটাল প্রযুক্তি বোঝার মতো পুলিশ, তদন্ত কর্মকর্তা, উকিল এবং আদালত সাজানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন: তথ্যের অপব্যবহার রোধে এবং সাইবার অপরাধ দমনে ডিজিটাল আইন প্রয়োজন আছে। আবার এ ধরনের আইনের কারণে স্বাধীন সাংবাদিকতা এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতা যেন কোনোভাবেই ব্যাহত না হয়, চিন্তা ও মত প্রকাশের সময় সাংবাদিকদের যেন ভয়ের মধ্যে থাকতে না হয় এমন একটি ভারসাম্য অবস্থা রেখেই সরকার আইনটি পাশ করার কথা ভাববে এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপণ করেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যপক ড. শেখ আবদুস সালাম।

প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে এবং সাংবাদিক মীর মাসরুর জামানের সঞ্চালনায় সেমিনারে আলোচনায় অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারপার্সন এবং ডিউএমসিজেএএ’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মফিজুর রহমান, অধ্যাপক ড. শফিউল আলম ভূঁইয়া, আইন বিভাগের অধ্যাপক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জন, দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, জিটিভি সম্পাদক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, এটিএন নিউজের বার্তা প্রধান প্রভাষ আমিন প্রমুখ।