চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডাবল সেঞ্চুরিতে যত রেকর্ডের পাতায় মুশফিক

অসাধারণ, দুর্দান্ত, নান্দনিক, দায়িত্বশীল, লড়াকু- সব বিশেষণই দারুণভাবে মানিয়ে যায় মুশফিকুর রহিমের ইনিংসের পাশে। ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন প্রথম দিনের সকালে, যখন ২৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ে বোলারদের সামনে বুক চিতিয়ে লড়াই করে দলের স্কোর ৫০০ পার করেছেন। ডাবল সেঞ্চুরি তুলেছেন দ্বিতীয় দিনের চা-বিরতির পর। খেলেছেন ৪০৭ বল। এরপর সাকিবের ‘সর্বোচ্চ’ ২১৭ টপকানোর পরই ইনিংস ঘোষণার সিদ্ধান্তে যায় বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

রোববার ম্যাচের প্রথম দিন ১৬১ রান করে আউট হওয়া মুমিনুল হক জানিয়েছিলেন এই উইকেটে ব্যাটিং করা কঠিন। থিতু হওয়া ব্যাটসম্যানও হঠাৎ করে এখানে আউট হয়ে যেতে পারেন। সেই ২২ গজে মুশফিক ৫৬৪ মিনিট কাটিয়ে করেছেন ডাবল সেঞ্চুরিটি।

এক ডাবলে যত রেকর্ড
*বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে মিরপুরে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন মুশফিক। এই মাঠে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংসটি ছিল মুমিনুল হকের। এই ম্যাচেই এ বাঁহাতি করেন ১৬১।

*দেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ২০১৩ সালে গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন মুশফিক। পরে একটি ডাবল হাঁকান তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দুটি ডাবল সেঞ্চুরির মালিক হলেন মুশফিক।

বিজ্ঞাপন

*এতদিন সাকিবের ২১৭ ছিল টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ইনিংস। অপরাজিত ২১৯ রান নিয়ে সেই আসনে বসেছেন মুশফিক।

*ইনিংসে সবচেয়ে বেশি বল খেলা বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৪৯৯ মিনিট উইকেটে থেকে ৪১৭ বল খেলে ১৯০ রানে আউট হন আশরাফুল। ৪২১ বল খেলে মুশফিক ছাড়িয়ে গেছেন আশরাফুলকে।

*শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ডাবল সেঞ্চুরি করা ব্যাটসম্যান হিসেবে মুশফিকের নাম উঠছে চার নম্বরে। ২০১২ সালে এই মাঠে প্রথমবারের মতো ডাবল সেঞ্চুরি করেন ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান শিবনারায়ন চন্দরপল (অপরাজিত ২০৩)। এর দুই বছর পর একই সংগ্রহ পেয়েছিলেন লঙ্কান মাহেলা জয়াবর্ধনে। আর ২০১৫ সালে ২২৬ রানের ইনিংস খেলেন পাকিস্তানের আজহার আলী।

*টেস্ট ইতিহাসে প্রথম উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে দুটি ডাবল সেঞ্চুরি করলেন মুশফিক। সাঙ্গাকারার একাধিক ডাবল আছে, কিন্তু তার মধ্যে কেবল একটি ম্যাচে তিনি উইকেটরক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

*আমিনুল ইসলামের গড়া সময়ের দিক থেকে সবচেয়ে দীর্ঘ ইনিংসের রেকর্ড ভেঙেছেন মুশফিক। এদিন তিনি  ক্রিজে ছিলেন ৫৩৬ মিনিটের বেশি। ১৭ বছর আগে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে ১৪৫ রান করার পথে ৫৩৫ মিনিট ব্যাটিং করেন আমিনুল। মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় দিন সেই রেকর্ড নতুন করে লেখান মুশফিক।