চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডাকসু নির্বাচনে পর্যবেক্ষণকারী শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি 

১১ মার্চ অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন ও হল সংসদ নির্বাচনে স্বেচ্ছাসেবকমূলক পর্যবেক্ষণকারী শিক্ষককের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল সোমবার রাতে প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সভায় ১৮টি হলের প্রভোস্ট ভিসির কাছে এই সুপারিশ করেন।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বেচ্ছাসেবী পর্যবেক্ষক দল নামে বিশ্ববিদ্যালয়ে কয়েকজন শিক্ষক অননুমোদিতভাবে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে গিয়ে যেভাবে সামাজিক যোগাযোগ ও প্রচার মাধ্যমে নির্বাচন সম্পর্কে অসত্য তথ্য ও বিভ্রান্তি ছড়িয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করেছেন তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও নিন্দনীয় বলে সভায় মত প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

তাদেরকে দায়িত্বশীল আচরণের প্রতি যত্নশীল থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রাধ্যক্ষবৃন্দ উপাচার্য মহোদয়ের নিকট জোর দাবি জানান। তবে কী ধরনের ব্যবস্থার নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে তা বলা হয়নি।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রভোস্ট কমিটির ওই সভা হয়। সভায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ এবং বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ উপস্থিত ছিলেন। এই সভাতে দীর্ঘ ২৮ বছর পর ১১ মার্চ ২০১৯ ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করা হয়। একই সাথে নির্বাচনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামানকে ফোন করা হয় কিন্তু তিনি অসুস্থতার কারণে কথা বলতে পারেননি।

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন সর্বাঙ্গীন সুষ্ঠু হয়নি বলে এর আগে বিবৃতি দেন ডাকসু নির্বাচনে পর্যবেক্ষণকারী বিশ্ববিদ্যালয়টির আটজন শিক্ষক। ১১ মার্চ কয়েকটি হলে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করে রাতে তারা এই বিবৃতি দেন।

বিবৃতি দেয়া শিক্ষকগণ হলেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরীন, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক কামরুল হাসান, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ফাহমিদুল হক, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ তানজীমউদ্দিন খান, অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রুশাদ ফরিদী, উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক কাজী মারুফুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তাহমিনা খানম এবং অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক অতনু রব্বানী।