চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ট্রাম্পের কাছে সিরীয় শিশুর আকুতিভরা খোলাচিঠি

বানা আলাবেদ। সিরিয়ার সাত বছর বয়সী এই বাচ্চা মেয়েটি যুদ্ধবিধ্বস্ত আলেপ্পো থেকে পাঠানো তার টুইটবার্তার জন্য বিশ্বজুড়ে পরিচিত।

বিজ্ঞাপন

এবার সে একটা খোলাচিঠি লিখেছে নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বরাবর। চিঠিতে ট্রাম্পের প্রতি শিশুটির আকুতি: “সিরিয়ার ছোট ছোট বাচ্চাদের জন্য আপনাকে কিছু একটা করতেই হবে। কারণ তারা আপনার সন্তানের মতো এবং আপনার মতোই তাদের শান্তিতে বাঁচার অধিকার আছে।”

গত ডিসেম্বরে সিরিয়ার আলেপ্পো থেকে জনগণকে ব্যাপক হারে অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার সময় বানা এবং তার পরিবারও সেখান থেকে পালিয়ে আসে। বর্তমানে তারা তুরস্কে অবস্থান করছে।

পূর্ব আলেপ্পো জঙ্গি সংগঠন আইএসের দখলে থাকা অবস্থায় সেখানে বসে বানার পোস্ট করা টুইট বার্তাগুলো সারা বিশ্বে সাড়া জাগাতে সফল হয়। টুইটের সাথে বিখ্যাত হয়ে যায় বানা আলাবেদও।

তুরস্কে বানা ও তার ভাই

বানাকে টুইটার অ্যাকাউন্টটি চালাতে সাহায্য করেন তার মা ফাতেমা। তিনি খোলাচিঠির বক্তব্যটি বিবিসির কাছে পাঠিয়ে জানান, ডোনাল্ড ট্রাম্পের শপথ গ্রহণেরও বেশ কিছু দিন আগে চিঠিটি লিখেছিল বানা। কারণ “সে (বানা) ট্রাম্পকে বহুবার টিভিতে দেখেছে।”

চিঠিতে বানা লিখেছে:

প্রিয় ডোনাল্ড ট্রাম্প,

আমার নাম বানা আলাবেদ এবং আমি আলেপ্পোর অধিবাসী সাত বছর বয়সী এক সিরীয় মেয়ে।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের ডিসেম্বরে অবরুদ্ধ পূর্ব আলেপ্পো ছাড়ার আগ পর্যন্ত আমার পুরোটা জীবন আমি সিরিয়ায় কাটিয়েছি। আমি সেই শিশুদেরই একজন যারা সিরিয়া যুদ্ধের শিকার হয়েছে।

কিন্তু এখন আমি আমার নতুন আবাস তুরস্কে শান্তিতে আছি। সিরিয়ায় আমি স্কুলে পড়তাম, কিন্তু কিছু সময় পরই স্কুলটা বোমার আঘাতে ধ্বংস হয়ে যায়।

আমার কয়েকজন বন্ধু মারা যায় সেখানে।

তাদের জন্য আমার মন খুব খারাপ হয়। আমার মন চায়, যদি তারা এখন আমার সঙ্গে থাকত, তাহলে তাদের সঙ্গে আমি এখন খেলতে পারতাম। আলেপ্পোতে আমি খেলতে পারতাম না, সেটা ছিল মৃত্যুর শহর।

এখন তুরস্কে আমি ঘর থেকে বেরিয়ে মজা করতে পারি। এখনো স্কুলে না গেলেও আমি চাইলেই যেতে পারি। এ কারণেই শান্তি সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ, আপনার জন্যও।

যাইহোক, লাখ লাখ সিরীয় শিশু এই মুহূর্তে আমার মতো অবস্থায় নেই। তারা সিরিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। সেই শিশুরা ভুগছে বড়দের কারণে।

আমি জানি আপনি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন। আপনি কি দয়া করে সিরিয়ার শিশু এবং জনগণকে রক্ষা করবেন? সিরিয়ার ছোট ছোট বাচ্চাদের জন্য আপনাকে কিছু একটা করতেই হবে। কারণ তারা আপনার সন্তানের মতো এবং আপনার মতোই তারা শান্তিতে বাঁচার দাবিদার।

আপনি যদি আমাকে কথা দেন আপনি সিরিয়ার শিশুদের জন্য কিছু করবেন, তাহলে আমি এখন থেকেই আপনার নতুন বন্ধু।

আপনি সিরিয়ার অধিবাসী ছোট ছেলেমেয়েদের সাহায্য করতে কী করেন তা দেখার অপেক্ষায় রইলাম।

বানার পরিবারের নতুন ঘর তুরস্ক সিরিয়ার বিরোধী দলকে সমর্থন করে। অবশ্য ট্রাম্প সরকারের অবস্থান এ ব্যাপারে এখনো স্পষ্ট নয়। তবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বারবার রাশিয়ার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক তৈরির কথা বলেছেন, এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের পক্ষে।