চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নাম না জানিয়ে ছাত্রলীগের ‘বিতর্কিত’ ১৯ জনের পদ শূন্য ঘোষণা

নাম প্রকাশ না করায় সেটিকে ‘প্রহসন’ বলছে পদবঞ্চিতরা

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্র নির্বাহী সংসদের নবগঠিত ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি থেকে বিভিন্ন অভিযোগে বিতর্কিত ১৯ জনের পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে। তবে সেই ১৯ জনের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে বিতর্কিত ১৯ জনের পদ শূন্য ঘোষণা করে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে কমিটি থেকে যে ১৯ জনকে বাদ দেওয়া হয়েছে তাদের নাম প্রকাশ না করার বিষয়টিকে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতারা ‘প্রহসন’ বলেছেন।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত অভিযোগের ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ১৯টি পদ শূন্য ঘোষণা করা হলো৷ পরবর্তীতে যাচাই-বাছাইপূর্বক পদগুলো পূরণ করা হবে৷’

বাদ পড়া ১৯ জনের নাম প্রকাশ না করার বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেছেন, তাঁদের কাছে থাকা সব তথ্য ও প্রমাণাদি তাঁরা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছেই দেবেন৷

রাব্বানী বলেন, ‘প্রথমত, আমাদের সাংগঠনিক দপ্তরে একজনের বিরুদ্ধেও আনুষ্ঠানিক লিখিত অভিযোগ কেউ দেয়নি৷ দ্বিতীয়ত, বিভিন্ন মাধ্যমে অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা নিজেরাই সেগুলো যাচাই-বাছাই করেছি৷ সেক্ষেত্রে আমরা প্রাথমিক অভিযোগের ভিত্তিতে ১৯ জনকে শনাক্ত করেছি৷ আমাদের হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্ট, গঠনতন্ত্র- সবই জননেত্রী শেখ হাসিনা৷ আপা দেশে ফিরলে আমরা তার কাছেই সব প্রমাণ ও তথ্যাদি দেব৷’ছাত্রলীগ-পূর্ণাঙ্গ কমিটি-ছাত্রলীগের পদ

পদবঞ্চিত অংশের আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক গত কমিটির কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘কাদেরকে পদ শূন্য ঘোষণা করা হলো, তা জানানো হয়নি৷ আমাদের সঙ্গে যে প্রহসনগুলো এতদিন করা হয়েছে, এটিও তারই ধারাবাহিকতা৷ কারা বিতর্কিত তা না জানানোর ফলে তাদের (সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক) ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার হতে পারে পদবঞ্চিত অনেকে।

প্রসঙ্গত, রোববার রাত একটা থেকে দ্বিতীয় দফায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান করছেন পদবঞ্চিতরা৷ মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার সময় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তারা অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন৷