চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গাজীপুরে দুই লাখ ভোটে নৌকার জয়

নতুন নগরপিতা জাহাঙ্গীর আলম

প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে হওয়া গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির হাসান উদ্দিন সরকারকে দুই লাখের বেশি ভোটে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর আলম।

৪২৫টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে স্থগিত ৯টি কেন্দ্র ছাড়া বাকি ৪১৬টি কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী নৌকা প্রতীকে জাহাঙ্গীর আলম ৪ লাখ ১০টি ভোট পেয়েছেন। আর তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী পেয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬১১টি ভোট।

রাতভর ভোট গণনা শেষে বুধবার সকালে ফলাফল নিশ্চিত করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডল।

স্থগিত হওয়া ৯টি কেন্দ্রে পরে শুধু কাউন্সিলর পদের প্রার্থীদের জন্য ভোট অনুষ্ঠিত হবে বলে জানানো হয়েছে।

আগের দিন মঙ্গলবার গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয় সকাল ৮টায়, শেষ হয় বিকেল ৪টায়। সকাল থেকেই কেন্দ্রগুলোতে ছিলো ভোটারদের লম্বা লাইন।

ভোট সুষ্ঠু করতে কেন্দ্রগুলোতে পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় ১২ হাজার সদস্য সশস্ত্র পাহারা দেয়। সার্বক্ষণিক সতর্কবস্থায় নগরজুড়ে টহলে ছিলো ২৯ প্লাটুন বিজিবি।

ইসি’র তথ্যানুযায়ী, গাজীপুর সিটি নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিলো প্রায় ৬৫ শতাংশ।

বিকালে ভোট গ্রহণের পর কেন্দ্রগুলোতে ভোট গণনা শেষে ফল চূড়ান্ত করে ভোটের ফল পাঠানো হয় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে। রাতভর গণনা শেষে রিটার্নিং কর্মকতা কেন্দ্রের ফল ঘোষণার পর সবগুলো কেন্দ্রের ফলাফল থেকে মেয়র পদে বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেন।

আয়তনের দিক থেকে সবচেয়ে বড় এই সিটিতে এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে ভোট দেন গাজীপুর নগরবাসী। ৫৭টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৭জন। এর মধ্যে ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৩৫ জন পুরুষ এবং ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন নারী ভোটার।

৫৭টি ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মধ্যে একজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর এরই মধ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বাকি ৫৬টি ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ২৫৪জন ও সংরক্ষিত ১৯ মহিলা ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৮৪জন এবং মেয়র পদের জন্য ৭ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন।

সর্বমোট ৩৪৫জন প্রার্থী গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।