চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গণআজাদী লীগকে নিবন্ধন দিতে হাইকোটের্র রুল

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অন্যতম শরীক রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগকে কেন নিবন্ধন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে আজ বেলা ১২ টায় হাইকোর্ট, বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশনের (ইসির) প্রতি রুল জারি করেছেন । ইসির রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের সকল শর্ত পূরণসহ সব ধরণের যোগ্যতা থাকার পরও বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগকে কেন নিবন্ধন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে গত ২১ এপ্রিল হাইকোর্টের মাননীয় বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল এর সমন্বয়ে গঠিত যৌথ বেঞ্চে ( ২১ নং ) রিট পিটিশনটি দাখিল করেন বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগের সভাপতি ও ১৪ দলের কেন্দ্রীয় নেতা এ্যাডভোকেট এস. কে সিকদার ।

সিকদার জানান, নিবন্ধন পাওয়ার সব ধরনের যোগ্যতা থাকার পরও নির্বাচন কমিশন গণ আজাদী লীগকে নিবন্ধন দেননি।  তিনি বলেন, “ইসির এমন সিদ্ধান্তে আমরা বাধ্য হয়ে আদালতের দারস্থ হয়েছি এবং ন্যায় বিচার পাবো আশা করছি।” আদালতের সিদ্ধান্তের পর গণ আজাদী লীগের মহাসচিব মুহাম্মদ আতাউল্লাহ খান আদালত রীট আবেদনটি গ্রহণ করে রুল জারি করায় সন্তোষ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। রীট আবেদনের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম ও এ্যাডভোকেট এস কে সিকদার। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর ইসি নতুন ভাবে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনের জন্য মোট ৭৬ টি দলের আবেদন গ্রহন করেন ।

সেখান হতে প্রাথমিক ভাবে ৫৬ টি দলকে বাছাই করা হয় । পরে মাত্র ২ টি দলকে নিবন্ধন এর জন্য চুডান্ত ভাবে বাছাই করা হয় যার একটি গণ আজাদী লীগ। ভাষা সংগ্রামী মাওলানা আবদুর রশীদ তর্কবাগীশ ১৯৭৬ সালে ৭ অক্টোবর বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় দলটি কাজ করে আসছে। প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে দলের প্রতীক ছিল লাঙ্গল, পরে ১৯৭৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলটি উড়োজাহাজ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে তাই প্রতীক চাওয়া হয়েছিল উড়োজাহাজ।

একই সঙ্গে ২০০৪ সাল হতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরীক দল হিসেবে সারা দেশে বর্তমান সভাপতি এ্যাডভোকেট এস কে সিকদার ও মহাসচিব মুহাম্মদ আতা উল্লাহ খান এর নেতৃত্বে বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে।