চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কোরবানির বাজার ধরতে প্রস্তুত সাড়ে ৫ লাখ খামারি

কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে প্রস্তুত দেশের প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ খামারি। সারাদেশেই ছোট ও মাঝারি উদ্যোক্তারা বিনিয়োগ করেছেন গরু মোটাতাজাকরণ খামারে। তাদের অধিকাংশের দাবি, এবার গরুর শরীরে হরমোন রাসায়নিক প্রয়োগ থেকে বিরত। অন্যদিকে প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তর জানিয়েছে, কোরবানির চাহিদা পূরণে এবার পশু আমদানির প্রয়োজন নেই।

বিজ্ঞাপন

কেননা মাংসের চাহিদা পূরণের জন্য দেশে সারাবছরের চাহিদা ২ কোটি ৩০ লাখ গরু, ছাগল, মহিষ ও ভেড়া। এই সংখ্যার অর্ধেকই লাগে কোরবানি ঈদে। পশুর বাজারের বিরাট এই চাহিদা পূরণের জন্য প্রতিবছরই বাড়ছে মৌসুমি খামার উদ্যোক্তার সংখ্যা। ক্ষুদ্র চাষী থেকে শুরু করে বড় ব্যবসায়ীরা পর্যন্ত যুক্ত হচ্ছেন এই উদ্যোগে।

বিজ্ঞাপন

এদের মধ্যে গাজীপুরের কোনাবাড়িতে হাজী মনসুর আলী দুই একর জায়গার ওপর এই খামার গড়তে প্রাথমিক বিনিয়োগ করেন ২ কোটি টাকা। এর ওপরে রয়েছে প্রতিদিনের খাদ্য পরিচর্যা ব্যয়। এক মৌসুমেই ভালো মুনাফা ঘরে তোলার আশা তার।

একই হারে লাভের স্বপ্ন ছোট বড় খামারি। প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর বলছে, সারাদেশের খামারিরাই এবার কোরবানির পশুর শতভাগ যোগান দিতে প্রস্তুত। একইসঙ্গে খামারগুলোতে হরমোন ও স্টেরয়েডমুক্ত খাদ্য মব্যবহার নিশ্চিত করতেও মাঠে সক্রিয় প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর।

বিস্তারিত দেখুন ভিডিও রিপোর্টে: