চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কেউ খোঁজ নেয়নি ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের

তিন দাবি নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করার দুই দিন পেরিয়ে যাচ্ছে। এখনও সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের কেউ খোঁজ নেয়নি আন্দোলনরত ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের।

বিজ্ঞাপন

গত রোববার রাত একটা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতারা।

বিজ্ঞাপন

তিনটি দাবি নিয়ে তারা এই অবস্থান কর্মসূচির শুরু করে। তাদের দাবিগুলো হলো: মধুর ক্যান্টিনে হামলার বিচার, কমিটি থেকে বিভিন্ন অভিযোগে বিতর্কিতদের বাদ দিতে হবে এবং যোগ্যদের মূল্যায়ন করতে হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা যায়, তীব্র রোদের মধ্যে সামিয়ানা টাঙিয়ে অবস্থান করছেন গত কমিটির কয়েকজন নেতা। দুই দিন পেরিয়ে যাচ্ছে অথচ কেউ তাদের খোঁজ না নেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা।

এ সময় পদ না পাওয়া গত কমিটির কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন: আমরা নায্য দাবি নিয়ে এখানে অবস্থান করছি। কিন্তু সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ আমাদের কোন খোঁজই নেয়নি। তারা বিতর্কিত কমিটি নিয়েই বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়েছে। যেখানে রাজাকারের সন্তানও ছিল। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিকে তারা অবমাননা করেছে। এজন্য আমাদের লজ্জা হয়। এ ঘটনার মধ্য দিয়ে ছাত্রলীগের ইতিহাসে সবচেয়ে বাজে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো শোভন-রাব্বানী (ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক)।

অবস্থানকারী নেতাকর্মীরা বলেছেন, তাদের দাবি না মানা পর্যন্ত তারা সেখানে অবস্থান করবেন। প্রয়োজনে ঈদেও তারা বাড়ি না গিয়ে আন্দোলন করে যাবেন।