চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কুয়েত এবং তিউনিসিয়ায় জঙ্গি হামলা, ৩১ জনের মৃত্যু

কুয়েত এবং তিউনিসিয়ায় পৃথক দুটি জঙ্গি হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। কুয়েতের রাজধানী কুয়েত সিটিতে অবস্থিত এক শিয়া মসজিদে আত্মঘাতি বোমা হামলায় মারা গেছেন কমপক্ষে চার জন। অন্যদিকে তিউনিসিয়ার পর্যটন শহর সউসিতে সৈকতে দুই বন্দুকধারীর হামলায় মারা গেছেন ২৭ জন। এ দুই হামলার ঘটনায় অনেকেই আহত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

কুয়েতের রাজধানীতে অবস্থিত একটি শিয়া মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় কমপক্ষে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও আহত হয়েছেন আরও অনেকে। মৃতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি বলে অসমর্থিত সুত্রের বরাতে জানা গেছে। রাজধানী কুয়েত সিটির পূর্বের ব্যস্ত এলাকা আল-সাওয়াবারে অবস্থিত ইমাম সাদিক মসজিদে শুক্রবারের নামাজের সময় এই আত্মঘাতি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সাথে সম্পর্কিত একটি গ্রুপ এই হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বিকার করেছে। কুয়েতের প্রতিবেশি দেশগুলোতে সৌদি আরব এবং ইয়েমেনে সাম্প্রতিক সময়ে আইএস এই ধরনের হামলা চালিয়ে আসছে।

কুয়েত সিটির গর্ভনর থাবেত আল-মুহান্না রয়টার্সকে চারজনের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করেছেন। তবে সংবাদ সংস্থা এএফপি কমপক্ষে ১৩ জন মারা গেছেন বলে জানায়। কমপক্ষে ৮ জন আহত হয়েছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আত্মঘাতি হামলার সময় মসজিদটিতে ২ হাজার লোক ছিলো বলে জানিয়েছেন কুয়েতের একজন এমপি। তিনি ঘটনাটির প্রত্যক্ষদর্শী।

অপরদিকে তিউনিসিয়ার রিসোর্ট শহর সউসি’তে দুইটি পর্যটক হোটেলের নিকটবর্তী সাগর সৈকতে দুইজন বন্দুকধারীর হামলায় কমপক্ষে ২৭ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির আভ্যন্তরীন মন্ত্রণালয়। নিহতদের অধিকাংশই বিদেশি নাগরিক। এছাড়াও হামলায় আহত হয়েছেন ৬ জন।

হামলাকারীদের একজনকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে এবং অপরজনকে এখনও গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। এই হামলার দায় এখনো কেউ স্বীকার করেনি।

আক্রান্ত সউসি শহরটি একটি জনপ্রিয় পর্যটন এলাকা।

চলতি বছরে তিউনিশিয়ার রাজধানী তিউনিসে অবস্থিত একটি জাদুঘরে প্রধানত বিদেশিদের লক্ষ্য করে পরিচালিত এক জঙ্গি হামলায় ২২ জনের মৃত্যু হয়। এ হামলার প্রেক্ষিতে এ বছরের মার্চ মাস থেকেই তিউনিসিয়ায় সর্বোচ্চ সর্তকতা জারি করা হয়েছিলো।