চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কুয়াকাটার নতুন আকর্ষণ ইলিশ পার্ক ও নৌকার জাদুঘর

কুয়াকাটা ভ্রমণে পর্যটকদের আনন্দ দিতে গড়ে তোলা হয়েছে ইলিশ পার্ক। সে সঙ্গে ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য আছে ঐতিহ্যবাহী পুরনো নৌকার জাদুঘর। পর্যটন নগরী কুয়াকাটার মূল সড়ক থেকে কিছুটা ভেতরে পর্যটকদের জন্য বিশেষ এই ইলিশ পার্ক। প্রবেশের পর চোখে পড়বে নানা প্রজাতির জীবজন্তুর ভাস্কর্য।

বিজ্ঞাপন

ফুলের গাছ দিয়ে সাজানো বাগান। পাশেই রাখাইনদের বৈচিত্রময় জীবনের ফটো গ্যালারি। পার্কের চারদিকের কৃত্রিম লেক। সীমিত পরিসরে আছে মিনি চিড়িয়াখানা। বাঁশ ও ছনের ঘরে যেমন ঐতিহ্যবাহী খাবার দাবারের ব্যবস্থা আছে তেমনই রয়েছে বিশাল আকৃতির কৃত্রিম ইলিশের পেটে বসে ইলিশসহ নানা মুখরোচক খাবারের স্বাদ গ্রহণের সুযোগ।

এ পার্কের উদ্যোক্তা রুমান ইমতিয়াজ তুষার বলেন, উপকূল বাসীর সাথে ইলিশের একটা আত্নার সর্ম্পক আছে। এই উপকূলবাসীকে ইলিশের সাথে আরো একটু পরিচয় করে দেওয়ার জন্যই এই উদ্যোগ। আর ইলিশের ভিতরে ইলিশ খাব এটার আলাদা একটা ইমেজ থাকুক।

বিজ্ঞাপন

প্রথমবারের মতো এমন পার্কে এসে অভিভূত দর্শনার্থীরা। দেখতে আসাদের একজন জানায়, এখানে সবাইকে নিয়ে আসতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। আর এতো বড় ইলিশ দেখতে পারাও একটা সৌভাগ্যর বিষয়।

২০১৬ কে স্বাগত জানানোর মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু ইলিশ পার্কের। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ছাড়াও ছিলো ফানুস উড়ানোর উৎসব। ইলিশ পার্কের পাশাপাশি আরেকটি আকর্ষণীয় স্থান যা স্থানীয়দের কাছে পরিচিতি পেয়েছে নৌকা যাদুঘর হিসেবে।

কুয়াকাটা সৈকতে বালুর বুক চিরে জেগে ওঠা শত বছরের পুরনো নৌকাটি প্রাচীন নিদর্শনের চিহ্ন হিসেবে স্থাপন করা হয়েছে বৌদ্ধমন্দির সংলগ্ন একটি বেষ্টনীর ভেতর। স্থানীয়রা জানায়, এতো বড় পুরনো নৌকা আমাদের দেখার সৌভাগ্য হতো না যদি এখানে না থাকতো।

দর্শনীয় স্থানটিতে যাদুঘর সংশ্লিষ্ট কোন ব্যক্তির না থাকার বিষয়টি উল্লেখ করে পর্যটকরা বলছেন, প্রাচীন এই নৌকার ইতিহাস সম্পর্কে জানানো হলে আগ্রহ বাড়বে অনেকের।