চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কলার রাজ্য উগান্ডা

পূর্ব আফ্রিকার দেশ উগান্ডার ৭৫ ভাগ কৃষকের প্রধান উৎপাদিত পণ্য কলা। বর্তমানে দেশটির অর্ধেক জমি এসেছে আবাদের আওতায়। আর ৭৮ শতাংশ জমিতেই রয়েছে কলা গাছ। কলা আবাদে ঝুট ঝামেলা কম। উর্বর মাটিতে চারা পুঁতে যৎসামান্য যত্ন করলেই ফলন নিশ্চিত। তাই যুগ যুগ ধরেই প্রধান খাদ্য পণ্য উৎপাদনেই পারদর্শিদতা উগান্ডার কৃষিজীবী মানুষের।

দুর-দুরান্তের বাজারে বাই-সাইকেলে বিমেষ কায়দায় কলা বহন সেখানকার চিরপরিচিত দৃশ্যের একটি। উগান্ডার এক কৃষক জানায়, সে ১৬ কিলোমিটার সাইকেলে চেপে কলা নিয়ে বাজারে যায় বিক্রি করতে।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বব্যাপী পানামা রোগ কলা উৎপাদনকে সংকটে ফেলে। চীনে উজাড় হয়ে যায় হাজার হাজার হেক্টরের কলা বাগান। এ বির্পজয় সমপ্রতি চীন কাটিয়ে উঠেছে।কৃষকের অর্থকারী এই পণ্য নিয়ে নানামুখী গবেষণা ও সহায়তায় সরকারের পাশাপাশি উদ্যোগী হয়েছে উন্নয়ন সংগঠনগুলি।

বিজ্ঞাপন

টিস্যু কালচার চারা উৎপাদন নিয়ে এগিযে এসেছে ব্র্যাক। উগান্ডার টিস্যু কালচার ল্যাবের ব্যবস্থাপক খন্দকার সালেহ আহমেদ বলেন, কলার যে পানামা রোগ তার ক্ষতির পরিমাণ শতকরা শতভাগ। উগান্ডায় আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি যে কিছু কৃষক কলার আবাদই ছেড়ে দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এখানকার জাতীয় কৃষি গবেষণা কেন্দ্র এটা নিয়ে গবেষণা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে টিস্যু কালচার পদ্ধতি যদি ব্যবহার করা যায় সেক্ষেত্রে এ রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

দেশজুড়ে রয়েছে কলার অসখ্য বাজার।উগান্ডার কলার চার রকমের ব্যবহারকে ঘিরে রয়েছে বহু সংখ্যক কলার জাত। সেদ্ধ করে প্রধান খাদ্য হিসেবে, বিয়ার উৎপাদন শিল্পে ব্যবহারের জন্য, পুড়িয়ে খাওয়ার জন্য এবং ডেজার্ট হিসেবে খাওয়ার জন্য রয়েছে পৃথক পৃথক রকমের কলা।

উগান্ডার মানুষের প্রধান খাদ্য কলা। একসময় প্রাকৃতিকভাবে উৎপাদিত কলাই ছেলো তাদের জীবন ধারণের প্রধান উপকরণ। কিন্ত পরে চাষ ও বাণিজ্য শুরু হওয়ার পর কৃষকদেরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে কলা।