চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করিমের পর এবার হাছন রাজাকে নিয়ে শাকুর মজিদ

মূলত ভ্রমণ লেখক হিসেবে সুপরিচিত শাকুর মজিদ। তবে নাট্যকার হিসেবে একটা সতন্ত্র অবস্থান রয়েছে তার্। ২০১০ সালে তার লেখা প্রথম মঞ্চনাটক ‘মহাজনের নাও’ ঢাকার মঞ্চে আসে। সুবচন নাট্যসংসদের প্রযোজনা হিসেবে সুদীপ চক্রবর্তীর নির্দেশনায় নাটকটি দেশে-বিদেশে প্রশংসিতও হয়েছে।

সাত বছর পর শাকুর মজিদের রচনায় মঞ্চনাটক আসতে চলেছে ঢাকার মঞ্চে। এবারের বিষয় ভাটিঅঞ্চলের আরেক কিংবদন্তী শিল্পীসত্ত্বা হাছন রাজা। নাট্যদল প্রাঙ্গণেমোর এর তাদের ১৩ তম প্রযোজনা হিসেবে ‘হাছনজানের রাজা’ হিসেবে নাটকটি মঞ্চে আনার পরিকল্পনা করেছে। নতুন বছরের প্রথম দিনে থেকে রিহার্সেল শুরু হয়েছে নাটকটির। দলের সদস্যদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে পান্ডুলিপি তুলে দেন দলীয় প্রধান অনন্ত হীরা।

‘হাছনজানের রাজা’ নাটকের পান্ডুলিপি তুলে দেওয়া হচ্ছে

মঞ্চের জন্য নিজের লেখা দ্বিতীয় নাটক প্রসঙ্গে শাকুর মজিদ চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘ভাটি অঞ্চলের তিন কালজয়ী শিল্পী সত্ত্বা রাধারমন দত্ত, হাছন রাজা এবং শাহ আবদুল করিম। তিন জনের তিন রকমের জীবন ধারা। হাছন রাজা ছিলেন সামন্ত প্রভু আর নিরক্ষর প্রান্তিক দরিদ্র শাহ আবদুল করিম দুজনে মুসলমান। অন্যদিকে রাধারমণ দত্ত সনাতন ধর্মের অনেকটা মধ্যবিত্ত গোছের।বিভিন্ন আর্থ সামাজিক অবস্থান থেকে আসা তিনজনের শিল্পীস্বত্ত্বা নিয়ে প্রবল কৌতুহল রয়েছে আমার। তিনজনকে নিয়ে ট্রিলজির অংশ ‘হাছনজানের রাজা’। এরপরে আসবে রাধারমণকে কেন্দ্র করে ‘রাধার মন’।’

প্রাঙ্গণেমোর কে বেছে নেওয়া কেন প্রশ্নে শাকুর মজিদ বলেন, ‘আমার মনে হয়েছে নাট্যদল হিসেবে এ মুহূর্তে তারা অনেক নিয়মতান্ত্রিক এবং গোছানো। আমার রচনার সর্বোচ্চ প্রয়োগ তারা করতে পারবে বলে মনে হয়েছে। তাছাড়া তাদের যত প্রযোজনা তা সব খ্যাতিমান মৃতদের নিয়ে। যেমন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মোহিতলাল মজুমদার, সৈয়দ শামসুল হক। একমাত্র জীবিত নাট্যকার হিসেবে তাদের প্রযোজনায় সম্পৃক্ত হওয়াটা সম্মানের।’

নাটকটির নির্দেশনা দিতে যাওয়া দলটির প্রধান অনন্ত হীরা চ্যানেল আই অনলাইনকে জানান, ‘আমরা পাণ্ডুলিপি পাঠের মধ্য দিয়ে নতুন নাটকের রিহার্সেল শুরু করেছি। আশা করি ৩০ মার্চ মঞ্চে উঠবে নাটকটি।’ তিনি আরো বলেন, ‘শাকুর মজিদের মহাজনের নাও দেখার পর আমাদের ইচ্ছা ছিল তার কাছ থেকে যদি পাণ্ডুলিপি মিলত তবে ভালো হত। তিনি তার ট্রিলজি চিন্তার দ্বিতীয়টি আমাদের দিয়েছেন তাতে আমরা খুশি। হয়ত তার তৃতীয়টিও প্রাঙ্গণেমোর মঞ্চে আনবে।’