চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এরশাদের অবর্তমানে আবারও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অবর্তমানে বা চিকিৎসায় বিদেশে থাকাকালে তার পরিবর্তে দলের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন বর্তমান কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

বিজ্ঞাপন

এরশাদ স্বাক্ষরিত এক সাংগঠনিক নির্দেশে জানানো হয়েছে:

“জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হিসেবে আমি এই মর্মে আমার পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থক-শুভানুধ্যায়ী এবং সংশ্লিষ্ট সকল মহলের জ্ঞাতার্থে জানাতে চাই, গত ২২ মার্চ ২০১৯ তারিখে আমার স্বাক্ষরিত একটি ‘সাংঠনিক নির্দেশ’ জারী করেছিলাম, যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছিল। উক্ত ‘সাংগঠনিক নির্দেশ’ অত্র ‘সাংগঠনিক নির্দেশ’ দ্বারা বাতিল ঘােষণা করছি।

বিজ্ঞাপন

আমি আবারও জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের স্মরণ করে দিতে চাই যে, গত ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে আমার স্বাক্ষরিত ‘সাংগঠনিক নির্দেশনা’ যথা “আমি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হিসেবে পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে, আমার অবর্তমানে বা চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিদেশে থাকাকালীন সময়ে পার্টির বর্তমান কো-চেয়ারম্যান জনাব গােলাম মােহাম্মদ কাদের এমপি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।” অত্র ‘সাংগঠনিক নির্দেশ’ দ্বারা পুনর্বহাল করলাম।

পুনরায় আমি জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থক-শুভানুধ্যায়ী এবং সংশ্লিষ্ট সকল মহলের জ্ঞাতার্থে জানাতে চাই, আমার অবর্তমানে বা চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিদেশে থাকাকালীন সময়ে পার্টির কো-চেয়ারম্যান জনাব গোলাম মােহাম্মদ কাদের, এমপি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।”

দলের গঠনতন্ত্রের ২০/১/ক ধারা মােতাবেক নেয়া এ সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে শুক্রবার সই করা ওই সাংগঠনিক নির্দেশ দিয়েছেন এরশাদ।

‘দলে বিভেদ সৃষ্টি ও দল পরিচালনায় ব্যর্থ হওয়ায়’ গত ২২ মার্চ জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক দায়িত্ব ও কো-চেয়ারম্যানের পদ থেকে জিএম কাদেরকে অব্যাহতি দিয়েছিলেন চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ।

এর ১২ দিন পর, অর্থাৎ নতুন নির্দেশের একদিন আগেই ৪ এপ্রিল আরেকটি সাংগঠনিক নির্দেশে কাদেরকে আগের কো-চেয়ারম্যান পদে পুনর্বহাল করেন তিনি। আর এবার নতুন নির্দেশের মধ্য দিয়ে আগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বও তিনি ফিরে পেলেন।