চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইন্দোনেশিয়ায় বিধ্বস্ত উড়োজাহাজের ভয়েস রেকর্ডার উদ্ধার

ইন্দোনেশিয়ার জাভা সাগরে বিধ্বস্ত লায়ন এয়ারের উড়োজাহাজটির ব্ল্যাকবক্সের ভয়েস রেকর্ডারটি উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

বিজ্ঞাপন

অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলকারী ফ্লাইট জেটি-৬১০ গত ২৯ অক্টোবর স্থানীয় সময় ভোর ৬টা ২০ মিনিটে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে উড্ডয়নের ১৩ মিনিট পরই গ্রাউন্ড কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল।

শেষ যোগাযোগের সময় সমুদ্রের ওপর দিয়ে ১৮৯ জন আরোহী নিয়ে যাচ্ছিল উড়োজাহাজটি।

মাত্র এক ঘণ্টা যাত্রার পরই তার পাংকাল পিনাং পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই সবাইকে নিয়ে সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয় প্লেনটি। আরোহীদের সবাই মারা গেছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

তদন্তকারীদের বক্তব্য, উড়োজাহাজটিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিয়েছিল।

ইন্দোনেশিয়ার পরিবহন নিরাপত্তা কমিটির (কেএনকেটি) উপপ্রধান হারিয়ো সাতমিকো জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় সোমবার সকাল ৯টায় (বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টা) প্লেনটির ককপিট ভয়েস রেকর্ডার (সিভিআর) উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।ইন্দোনেশিয়া-বিধ্বস্ত উড়োজাহাজ-ভয়েস রেকর্ডার

তবে উড়োজাহাজের ফিউজলাজ বা মূল কাঠামোটি খুঁজে পাওয়া যায়নি।

রেকর্ডারটি সমুদ্র তলদেশে কাদামাটিতে ৮ মিটার গভীরে পাওয়া গেছে বলে রয়টার্সকে জানিয়েছেন নৌবাহিনীর মুখপাত্র আগুং নুগ্রহো। আজকে উদ্ধার সম্ভব হলেও এর থেকে দুর্বল সংকেত গত কয়েকদিন ধরেই তাদের কাছে ধরা পড়ছিল বলে জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

নুগ্রহো আরও জানান, রেকর্ডারটির ওপর স্বাবাবিকভাবেই বেশ কিছু ঘষা খাওয়ার দাগ রয়েছে। তবে জিনিসটা কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এর আগে গ্রাউন্ড কন্ট্রোল থেকে জানা গিয়েছিল, পাইলট এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের কাছে উড়োজাহাজ ঘুরিয়ে বিমানবন্দরে ফিরিয়ে আনার অনুমতি চেয়েছিলেন। কিন্তু এর জবাব দেয়ার আগেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

এরপর গত নভেম্বরে ব্ল্যাকবক্সের প্রথম অংশ অর্থাৎ ফ্লাইট ডেটা রেকর্ডার (এফডিআর) উদ্ধার হয়েছিল জাভা সাগরের তলদেশে উড়োজাহাজের ধ্বংসস্তুপের মধ্য থেকে।ইন্দোনেশিয়া-বিধ্বস্ত উড়োজাহাজ-ভয়েস রেকর্ডার

ওই সময় সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছিলেন, এসব ব্ল্যাকবক্স থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করতে ছয় মাসের মতোও সময় লাগতে পারে।

আশা করা হচ্ছে, সোমবার উদ্ধার হওয়া সিভিআর থেকে ধ্বংস হওয়া আগে দুই পাইলট এবং গ্রাউন্ড কন্ট্রোলের রেকর্ড হওয়া শেষ কথাবার্তা শোনা যাবে এবং সেখান থেকেই তদন্তকারীরা ধাঁধার টুকরোগুলো মিলিয়ে বের করতে সফল হবেন ঠিক কী এবং কেন ঘটেছিল সেদিন।

একদিন আগেই ধরা পড়েছিল ত্রুটি
জাভা সাগরে বিধ্বস্ত লায়ন এয়ারের এই উড়োজাহাজটিতে একদিন আগেই যান্ত্রিক ত্রুটি ধরা পড়েছিল। উড়োজাহাজটির কারিগরি লগ থেকে বিবিসি জানায়, দুর্ঘটনার আগের দিন রোববার আরেকটি ফ্লাইটে বালি থেকে জাকার্তা যাওয়ার সময় ওই উড়োজাহাজে কিছু কারিগরি ত্রুটি দেখা দিয়েছিল।

লগে দেখা যায়, প্লেনের একটি যন্ত্রাংশ সমস্যা করছিল বলে পাইলট ওই সময় প্লেন চালনার দায়িত্ব ফার্স্ট অফিসারের হাতে তুলে দিতে বাধ্য হয়েছিলেন।ইন্দোনেশিয়া-বিধ্বস্ত উড়োজাহাজ-ভয়েস রেকর্ডার

কিন্তু সেই ক্রটি ঠিক না করেই অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলকারী ফ্লাইট জেটি-৬১০ গত ২৯ অক্টোবর ভোরে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে উড্ডয়ন করে।

এ তথ্য প্রকাশের একদিন পর দেশে সক্রিয় সবগুলো বোয়িং ৭৩৭-ম্যাক্স ৮ মডেলের উড়োজাহাজ পরীক্ষা করে দেখার নির্দেশ দেয় ইন্দোনেশিয়ার সরকার। ইন্দোনেশিয়ার পরিবহন মন্ত্রণালয় জানায়, দেশটির বাণিজ্যিক এয়ারলাইনগুলোতে থাকা সবগুলো ম্যাক্স ৮ যান পরীক্ষা করে দেখা হবে।