চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইতালির জন্য হাহাকার, বুফনের জন্য সম্মান

শেষ বাঁশি তখনো বাজেনি। ছটফট করছেন বুফন। তারপর বেজেই গেল। ইতালির অধিনায়ক আকাশে তাকালেন। কাঁদলেন না। এগিয়ে গেলেন সাইডলাইনের দিকে। সতীর্থদের সান্ত্বনা দিলেন। মাঠ ছাড়ার আগে আর ঠিক থাকতে পারলেন না। নিজে কাঁদলেন। আর ইতালিহীন এক বিশ্বকাপের হাহাকার ছড়িয়ে দিয়ে গেলেন আকাশে-বাতাসে!

প্লেঅফের দ্বিতীয় লেগে সুইডেনের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে গোলশূন্য ‘ড্র’ করে রাশিয়া বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে ইতালি। প্রথম লেগে তারা ১-০ গোলে হেরেছিল। সর্বশেষ ৬০ বছর আগে ইতালিকে ছাড়া বিশ্বকাপ দেখেছিল ফুটবলবিশ্ব।

প্রায় ছয় দশক পর এমন ঘটনা ঘটতে দেখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেন শোকের ছায়া নেমেছে। সাধারণ ফুটবল দর্শক থেকে শুরু করে সাবেক বর্তমান অনেক তারকা সমবেদনা জানিয়েছেন।

‘এমন কিছু ঘটবে তা ভাবিনি,’ মন্তব্য করে স্পেনের কিংবদন্তি গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াস বুফনকে উৎসর্গ করে লিখেছেন, ‘তোমাকে আমি আগের মতোই দেখতে চাই। বরাবর যেমনটা ছিলে। তুমি কিংবদন্তি। গর্ব অনুভব করি তোমার মুখোমুখি হতে পেরে।’

বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ে বুফন আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দেয়ার পর জার্মানির লুকাস পোডালস্কি লিখেছেন, ‘মাঠ এবং মাঠের তুমি অন্যতম সেরা।’

২০ বছরের ক্যারিয়ারে গোলরক্ষক বুফন ইতালির হয়ে ১৭৫টি ম্যাচে মাঠে নেমেছেন। তিনি বিশ্বাস করেন, এই বাদ পড়া ইতালির ফুটবলকে আরও উন্নত করবে। সমস্যা খুঁজে বের করে সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

ক্লাব জুভেন্টাসের হয়ে খেলা এই গোলরক্ষক ১৯৯৭ সালের অক্টোবরে জাতীয় দলে আসেন। কিছুদিন আগে বলেছিলেন, ২০১৮ বিশ্বকাপ খেলেই বিদায় নিতে চান। এদিন নিশ্চিত করলেন সেই বিদায়টা আগেই হয়ে যাচ্ছে, ‘দায় আমাদের সবার। বিদায়ের দিনে কোনো অজুহাত নেই। আমরা এক সঙ্গে জিতি, এক সঙ্গে হারি।’

এই বুফন, সেই বুফন

ইংল্যান্ডের সাবেক ফুটবলার, বর্তমানে যিনি নামি ধারাভাষ্যকার। সেই গ্যারি লিঙ্কার বুফনকে সম্মান জানিয়ে বলেছেন, ‘ইতালির হয়ে শেষ ম্যাচটি খেলে ফেললেন বুফন। তাকে অনেক মিস করবো। পাহাড়সম এক মানুষ তিনি। বিশাল গোলরক্ষক। তাকে শ্রদ্ধা।’

ইতালি ফুটবল ফেডারেশনের টুইটার পেজ থেকেও বুফনকে সম্মান জানিয়ে টুইট করা হয়েছে। সম্মান জানিয়েছেন উরুগুয়ের ফুটবল কর্তারাও। সময় যত  বাড়ছে, এই তালিকা তত দীর্ঘ হচ্ছে।