চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আশাটা ছাড়ছে না বাংলাদেশ

আশা ছাড়ছে না বাংলাদেশ! কেন আশা ছাড়বে? এমন তো নয় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কয়েকটি উইকেট হাতছাড়া করে দিনশেষ করেছে স্বাগতিকরা! তারপরও আশা-নিরাশার কথা আসছে দ্রুতই। ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষেই। টাইগারদের জন্য যে আশাটা রান তাড়ার কঠিন চ্যালেঞ্জের দেয়াল টপকাতে পারার।

বিজ্ঞাপন

একেতো প্রথম ইনিংসে ভেঙে পড়ার টাটকা স্মৃতি, সঙ্গে চতুর্থ ইনিংসে ৩০০ পেরোনো লক্ষ্যের পিছে ছুটতে হবে। শঙ্কার মেঘ ঘনীভূত হবেই। শুক্রবার দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসা মেহেদী হাসান মিরাজ অবশ্য জানিয়ে গেলেন, দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটসম্যানরা ঘুরে দাঁড়াতে আত্মবিশ্বাসী।

শ্রীলঙ্কার লিড পৌঁছে গেছে ৩১২ রানে, হাতে ২ উইকেট তাদের। স্বীকৃত ব্যাটসম্যান রোশেন সিলভা ৫৮ ও সুরঙ্গা লাকমাল ৭ রানে তৃতীয়দিনে লিড বাড়াতে নামবেন। দ্বিতীয় দিনেই ম্যাচ শ্রীলঙ্কার নিয়ন্ত্রণে যাওয়ার সাক্ষ্য দিচ্ছে স্কোরবোর্ড। পরেরদিন সকালে আরও কিছু রান যোগ করতে চাইবে সফরকারীরা। বাংলাদেশ তবুও আত্মবিশ্বাসী।

বিজ্ঞাপন

‘ম্যাচে সবকিছুই হতে পারে। লক্ষ্য থাকবে আগে দুটি উইকেট নেয়া। অবশ্যই আমরা আত্মবিশ্বাসী আছি। দুটি উইকেট যত তাড়াতাড়ি নেয়া যায় এবং নেয়ার পর যে রানই করুক না কেন, আমরা নিজেদেরটা খেলতে পারলে লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব।’

পরিসংখ্যান অবশ্য লক্ষ্যের কথা ভাবতেই শঙ্কায় শিউরে দিচ্ছে! মিরপুরে চতুর্থ ইনিংসে ২০৯ রানের বেশি তাড়া করে জেতার রেকর্ড নেই কোন দলের। আর বাংলাদেশই কখনও ২১৭ রানের বেশি তাড়া করে জেতেনি। তারপরও কীভাবে এত আত্মবিশ্বাস পাচ্ছেন মিরাজ?

মূর্তিকারিগর

টাইগার অলরাউন্ডার উদাহরণ হিসেবে টেনে আনলেন গত বছরের কলম্বো টেস্টকে। নিজেদের শততম টেস্ট ম্যাচটি ১৯১ রান তাড়া করে জেতে বাংলাদেশ। মিরাজ বললেন, বিদেশের দুইশর মতো রান তাড়া করতে পারলে দেশের মাটিতে কেন তিনশ নয়!

‘আমরা শ্রীলঙ্কার মাটিতে একটি টেস্ট জিতেছিলাম প্রায় দুইশ রানের মতো তাড়া করে। শ্রীলঙ্কার মাটিতে যদি দুইশ রান তাড়া করে জিততে পারি, তাহলে নিজেদের মাটিতে তিনশর বেশি করেও জিততে পারব। আশা থাকবে আমাদের সিনিয়র খেলোয়াড়রা ভাল করবে এবং দায়িত্ব নেবে।’