চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আল-আমিনের অ্যাকশনে বড় ধরনের ত্রুটি

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) একটি ডেলিভারির কারণে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিলেন আল-আমিন হোসেন। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে খেলা এই পেসার বিপিএল শেষে পেলেন আরও বড় দুঃসংবাদ। তার বেশ কয়েকটি ডেলিভারিতেই ত্রুটি খুঁজে পেয়েছে বিসিবির বোলিং অ্যাকশন রিভিউ কমিটি। বিপিএলের ভিডিও ফুটেজ ঘেঁটে তারা দেখেছেন বল ছাড়ার সময় হাতের কনুই প্রায় ২৫ ডিগ্রি বেঁকে যায়! আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী কনুই ১৫ ডিগ্রির বেশি বাঁকলে সেটি অবৈধ ডেলিভারি।

বিজ্ঞাপন

আল-আমিনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে রিভিউ কমিটির ভিডিও অ্যানালিস্ট নাসির আহমেদ নাসু বলেন, ‘বিপিএলে একটি ডেলিভারি নিয়ে আম্পায়াররা সন্দেহ প্রকাশ করার পর আমরা সবগুলো ম্যাচের অ্যাকশন পর্যবেক্ষণ করেছি। তাতে আল-আমিনের অ্যাকশনে বড় ধরনের ত্রুটি দেখেছি। হাত বেঁকে যায় ২৫ ডিগ্রির মতো। আমরা তাকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় থাকতে বলেছি। সে যখন মনে করবে অ্যাকশনে উন্নতি হয়েছে তখন এসে আমাদের কাছে পরীক্ষা দিতে পারবে।’

বিজ্ঞাপন

কুমিল্লার কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের অধীনে ত্রুটি শুধরে নেওয়ার কাজ করছেন আল-আমিন। সালাউদ্দিন এর আগে বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের ত্রুটি শুধরে দেন।

২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের প্রথম টেস্টে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল আল-আমিন হোসেনের বোলিং অ্যাকশন। ওই বছরের নভেম্বরে চেন্নাইয়ে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষায় পাস করে ফেরেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। ৬টি টেস্ট, ১৪টি ওয়ানডে ও ২৫টি টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলা ২৭ বছর বয়সী এই পেসারের ক্যারিয়ার আরেকবার হুমকির মুখে।

বিপিএলে সন্দেহজনক বোলিং অ্যাকশনের তালিকায় থাকা আরেক বোলার শরিফউল্লাহর বোলিং অ্যাকশন মঙ্গলবার পরীক্ষা করেছে রিভিউ কমিটি। শিগগিরই জানা যাবে তার ভাগ্যে কী আছে। বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলা এই অফস্পিনারের বেশিরভাগ ডেলিভারিই সন্দেহের চোখে দেখেন আম্পায়াররা।