চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আরেকটি ফাইনাল, স্বপ্ন একটিই

তামিম-সাকিব ছিটকে গেছেন। ভাঙা পাঁজর নিয়ে খেলছেন মুশফিক। অধিনায়ক মাশরাফী পেয়েছেন আঙুলে চোট। ভারতের বিপক্ষে এশিয়া কাপের আরেকটি ফাইনালের আগে বাংলাদেশ দলের দৃশ্যমান চিত্র এটি। তৃতীয় নয়নে তাকালে এসব দুর্দশাই আবার জেগে ওঠার শক্তি।

পাকিস্তানের বিপক্ষে বৃহস্পতিবার সে শক্তির প্রতিফলন দেখা গেছে মাশরাফী-মুশফিকদের মাঝে। প্রাণান্তকর চেষ্টার পর পাওয়া অসাধারণ জয়টি বাংলাদেশকে নিয়ে এসেছে স্বপ্নের দুয়ারে। শুক্রবার দুবাইয়ে ভারত-বধের চ্যালেঞ্জ টাইগারদের।

আগের রাতে ক্রিকেটাররা মাঠে যে লড়াকু মনোভাব দেখিয়েছেন, সেটি আরেকবার দেখাতে পারলেই হয়তো বহুদিনের আক্ষেপ ফুরাবে। ২০১২ ও ২০১৬ এশিয়া কাপে শিরোপার স্বপ্ন নিয়েই মিরপুরে ফাইনালে নেমেছিল বাংলাদেশ।

প্রথমবার পাকিস্তানের বিপক্ষে ২ রানের হারে স্বপ্নভঙ্গ। টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে অনুষ্ঠিত পরের আসরে ভারতের সঙ্গে ৮ উইকেটে হার। টুর্নামেন্ট টাইটেল অধরাই থেকে যায় বাংলাদেশের। এবার এসেছে আরেকটি সুযোগ, ফাইনাল। স্বপ্ন সেই একটাই, শিরোপা জয়।

মরুর বুকে ট্রফি হাতে মাশরাফীদের জয়োল্লাস হতে পারে বাঁধিয়ে রাখার মতো কোনো ছবি। পাকিস্তানের বিপক্ষে সেমিফাইনালে রূপ নেয়া ম্যাচে যে অদম্য মনোভাব দেখিয়েছে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা, সেটি বজায় থাকলে খুব কঠিন কী? মনেপ্রাণে বিশ্বাস রাখছি, ট্রফি নিয়েই দেশে ফিরবে টাইগাররা।

দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুই ক্রিকেটার সাকিব-তামিমকে ছাড়া জিততে পারে বাংলাদেশ, এই বিশ্বাস মনে গেঁথে চোখে চোখ রেখে লড়তে পারলে আশা রাখি এবার ফাইনাল বাংলাদেশেরই হবে। তপ্ত মরুর বুকে উড়বে বাংলাদেশের বিজয় পতাকা।

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে প্রথমবার শিরোপায় নাম লেখাতে বাংলাদেশ দলকে ভুলে যেতে হবে আক্ষেপের কিছু স্মৃতি। বড় আসরে ভারতের সঙ্গে তীরে এসে তরী ডোবানোর কিছু অতীত অভিজ্ঞতা আছে বাংলাদেশের। ২০১৫ বিশ্বকাপ, ২০১৬ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ও নিধাস ট্রফির ফাইনালে ভারতের সঙ্গে জয়ের আশা জাগিয়েও শেষপর্যন্ত ম্যাচ হাতছাড়া করে বাংলাদেশ। বড় আসরে ভারতের সঙ্গে একমাত্র জয়টি ২০০৭ বিশ্বকাপে।

বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ মানেই উত্তেজনার পারদ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কথার লড়াই। অনেক সময় মাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়া। গ্যালারিতে দুই দলের সমান সমর্থন। রোমাঞ্চকর একটি ম্যাচ উপভোগের সব অনুষঙ্গ। যেটি মাথায় নিয়ে অনেকসময়ই সংক্রমিত হয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। এবার এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের মিশনে নামার আগে অতীত পরিসংখ্যান ও মাঠের বাইরের ব্যাপারগুলো ভুলে থাকাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। নিজেদের স্বাভাবিক রেখে ময়দানী লড়াইয়ে নামতে পারাই হবে টাইগারদের বড় চ্যালেঞ্জ।

FacebookTwitterInstagramPinterestLinkedInGoogle+YoutubeRedditDribbbleBehanceGithubCodePenEmail