চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আরাফাত সানির জামিন

আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির একদিন পরেই জামিন পেলে আরাফাত সানি। সোমবার আত্মসমর্পণের পর জামিন পেয়েছেন ‘অসুস্থ’ এই ক্রিকেটার। যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলায় জাতীয় দলের এই তারকার বিরুদ্ধে রোববার গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন মহানগর দায়রা আদালত।

বিজ্ঞাপন

স্ত্রী দাবি করা এক তরুণী গত ২০ জানুয়ারি যৌতুক নিরোধ আইনে মামলা করেন সানির বিরুদ্ধে। বিষয়টি সুরহা করার পাশাপাশি রোববার আদালতে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশও ছিল সানির প্রতি। কিন্তু এই ক্রিকেটার উপস্থিত হননি। আইনজীবীর মাধ্যমে অসুস্ততার কারণ দেখিয়ে সময় বাড়ানোর আবেদন জানান। আদালত সেটি গ্রহণ করেননি। পলাতক দেখিয়ে সানির অনুপস্থিতিতেই পরোয়ানা জারি করেন মুখ্য হাকিম জাকির হোসেন টিপু।

বিজ্ঞাপন

সোমবার তাই গ্রেপ্তার এড়ানোর ব্যবস্থা নিতে হয় সানিকে। আইনজীবীর সঙ্গে এদিন দুপুরে আদালতে হাজির হন ‘অসুস্থ’ সানি। তার আইনজীবী আদলতে চিকিৎসা সংক্রান্ত কাগজপত্র উপস্থাপন করে জামিনের আবেদন করেন। মহানগর হাকিম সেটি মঞ্জুরও করেছেন।

এর আগে গত ৭ জুলাই স্ত্রী দাবি করা নাসরিন সুলতানার সঙ্গে ১০ দিনের মধ্যে সমঝোতা করার আদেশ দেয়া হয়েছিল সানিকে। সঙ্গে আদালত তাকে রোববার হাজিরাও দিতে বলেছিলেন। আদালতের এই নির্দেশটা অনুসরণ না করেই আবারো জেলে যেতে বসেছিলেন সানি।

গত ৫ জানুয়ারি আরাফাত সানির বিরুদ্ধে তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেন নাসরিন। নাসরিনের মামলায় বলা হয়েছিল ২০১৪ সালে তিনি সানির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে ঘরে তুলে নেয়া হয়নি। উল্টো তাকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে এবং মোবাইল ফোনে অন্তরঙ্গ ছবি পাঠিয়ে হুমকি দিতে থাকেন সানি।

পরে ১৯ জানুয়ারি সানিকে ঢাকার আমিনবাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। জেল কাটিয়ে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি জামিন পান সানি। পরে নাসরিন ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবির অভিযোগে যৌতুক নিরোধ আইনে সানির বিরুদ্ধে আদালতে আরেকটি মামলা করেন। সর্বশেষ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধেও মামলা করে নাসরিন। সবকটি মামলাতেই জামিনে ছিলেন, জামিন মিলল আবারো।