চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আমাদের ধরিত্রী

‘পৃথিবী আমাদের সম্পত্তি নয়, আমরা পৃথিবীর। … একে আমরা পূর্ব পুরুষের কাছ থেকে পাইনি, পরবর্তী প্রজন্মের কাছ থেকে ধার করেছি।’ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক রেড ইন্ডিয়ান নেতা ১৮৫৪ সালে এমন কথা লিখেছিলেন।

মার্কিন সরকার রিজার্ভ ফরেস্ট তৈরির জন্য রেড ইন্ডিয়ানদের সিয়াটলের আবাসভূমি ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দিলে, তখনকার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফ্র্যাঙ্কলিন পিয়ার্সকে চিঠিতে এসব কথা লেখেন তিনি। বেশ ক’বছর আগে ‘উন্নয়ন পদক্ষেপ’ ম্যাগাজিনে চিঠিটির বাংলা অনুবাদ পড়েছিলাম। ওই চিঠিকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ পরিবেশবাদী দলিল বলা হয়ে থাকে। কাব্যিক বিন্যাসে লেখা চিঠিটির সাহিত্য-মূল্যও অসাধারণ।

চিঠিটি পড়ার পরই এর কথাগুলো মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার ইচ্ছে তৈরি হয়। কিছুদিন পর পেয়ে যাই আবু হাসান শাহরিয়ারের কাব্যগ্রন্থ ‘এ বছর পাখিবন্যা হবে’। প্রকৃতিলগ্ন চিন্তার কবিতাগুলোকে ওই চিঠির সঙ্গে যুক্ত করার ভাবনা আসে। মনে হলো, আরো বড় কলেবরে কাজটি করা যেতে পারে। তখন আরও পড়াশোনা করার প্রয়োজন অনুভব করি। ঢাকার আমেরিকান সেন্টার এর লাইব্রেরিতে একই রকম চিন্তার একগুচ্ছ ল্যাটিন কবিতার অনুবাদ পেয়ে যাই। সেগুলো থেকে বাছাই করি। বিভিন্নভাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম এবং দেশী-বিদেশী আরো ক’জন কবি ও গীতিকবির কবিতা মিলে যায়। পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব নিয়ে কিছু গবেষণা প্রতিবেদন আর সংবাদপত্রের প্রতিবেদনের অংশও যোগাড় করি। এরপর সময় নিয়ে কয়েক দফা সম্পাদনার মধ্য দিয়ে দু’বছর সময় নিয়ে আবৃত্তি প্রযোজনা ‘ধরিত্রী’র একটি খসড়া দাঁড়িয়ে যায়। মঞ্চ-আলো-সঙ্গীত-পোশাকসহ প্রযোজনার অনুষঙ্গগুলোরও একটি ধারণা তৈরি হয়। মহড়া শুরু করি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রেড ইন্ডিয়ানদের সেই নেতা চিঠিতে প্রকৃতি ও পরিবেশের জন্য যে মমতা ফুটিয়ে তোলেন, প্রকৃতি ও পরিবেশকে যত্ন করার যে যুক্তি প্রতিষ্ঠা করেন, একশ’ বাষট্টি বছর পরের এ দুনিয়ায় তা আরো বেশি প্রাসঙ্গিক। নির্বিচারে প্রকৃতি ধ্বংসের কারণে পৃথিবীর অনেক অংশ আর বাসযোগ্য থাকছে না। জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে আমাদের দেশের নাম সবার ওপরে। খাদ্য নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়েছে। ভিটেবাড়ি-ফসলি জমি জলমগ্ন হয়ে পড়ায় শরণার্থী হয়েছে মানুষ। মাটি-পানি-বাতাসদূষণে জানা-অজানা রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

আমরা চাই, স্বরশ্রুতি’র নিবেদন ‘ধরিত্রী’ প্রিয় বাসভূমি’র জন্য আমাদের মমতাকে আরও একটু জাগিয়ে তুলুক। পৃথিবীর ক্ষতি করে, ছোট-বড় এমন যেকোনো কাজ থেকে আমাদের ফেরাক। তাহলে ভালো-মন্দ মিলিয়ে এ পরিবেশনার উদ্দেশ্যটি অন্তত সফল হয়।

ধরিত্রীর মঞ্চায়ন: ১০ ডিসেম্বর শনিবার সন্ধ্যে ০৬:১৫টায়, আবৃত্তি, সঙ্গীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তন, শিল্পকলা একাডেমি, ঢাকা।

লেখক:  গ্রন্থনাকারী ও নির্দেশক, ধরিত্রী, সাধারণ সম্পাদক, স্বরশ্রুতি।