চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আবেগের সঙ্গে মিলল ম্যারাডোনার নাচও!

ম্যাচ শুরুর আগে থেকেই বারকয়েক ম্যারাডোনার দিকে ঘুরে গেল ক্যামেরার লেন্স। ভীষণ রকমের চিন্তায় যে আছেন বোঝা যাচ্ছিল! পরে ক্যামেরা বারবার খুঁজে নিল চেনামুখটা। ক্ষণে ক্ষণে বদলাল আবেগের চিত্র, ম্যাচের দৃশ্যপটের মতই। তাতে একসঙ্গে ধরা পড়ল মাঠের আর মাঠের বাইরের চড়াই-উতরাই আবেগের পারদ রেখাগুলো।

বিজ্ঞাপন

এরমাঝেই অবশ্য নিজের চিরাচরিত রূপটাও দেখালেন ডিয়েগো ম্যারাডোনা। হাসলেন, কাঁদলেন। আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি সঙ্গে এক ফাঁকে দেখিয়ে দিলেন নাচের প্রতিভাটাও!

বিজ্ঞাপন

ম্যারাডোনা অবশ্য নাচটা দেখিয়েছেন ম্যাচের আগে। ভিআইপি গ্যালারিতে এক নাইজেরিয়ান মহিলা ভক্তের সঙ্গে কিছুক্ষণ নেচে বাকিদের বিনোদন যোগালেন। পরে ম্যাচ শুরু হতেই মন দিলেন খেলায়।

সেন্ট পিটার্সবার্গে ক্ষণে ক্ষণে রূপ পাল্টেছে নাইজেরিয়া-আর্জেন্টিনা ম্যাচে। ১৪ মিনিটে লিওনেল মেসির গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ৫১ মিনিটে পেনাল্টি গোলে সমতা ফেরায় নাইজেরিয়া। পরে ড্র মেনে যখন বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ার শঙ্কায় আলবিসেলেস্তেরা, তখনই ৮৬ মিনিটে মার্কোস রোহোর গোল। সেই গোলে চেপেই দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনা।

ম্যাচের মতই ক্ষণে ক্ষণে মেজাজ পাল্টেছেন ম্যারাডোনা। মেসির গোলের পর আকাশের দিকে তাকিয়ে দুহাত ছড়িয়ে রণহুঙ্কার ছেড়েছেন। আবার যখন পেনাল্টিতে পিছিয়ে পড়ল আর্জেন্টিনা, চোখ বেয়ে অনর্গল অশ্রু ঝরেছে ’৮৬ বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের।

ম্যাচের ভাগ্যের মতো ঝিমিয়ে পড়েছিলেন প্রায়! সম্ভবত স্নায়ুর চাপেই। এমন সময় রোহোর গোলটা পুনর্বার জাগিয়ে দেয় ম্যারাডোনাকে। তাতেই আবারও আনন্দে উদ্বেল ম্যারাডোনা। শেষপর্যন্ত গ্যালারি ছেড়েছেন চিরচেনা হাসিটা চোখে-মুখে-ঠোঁটে লেপ্টেই!