চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘আবেগপ্রবণ হয়ে বঙ্গবন্ধু আমার চিবুকটা ধরেছিলেন’

‘সাড়ে সাতশো সৈন্য নিয়ে বঙ্গবন্ধুর কাছে আমি অস্ত্র সমর্পণ করেছিলাম’

বাংলা থিয়েটারে অন্যতম একটি নাম নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু। একাধারে নাট্য নির্দেশক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা। তবে সবার আগে তার পরিচয় তিনি একজন রণাঙ্গনের যোদ্ধা। ১৯৭১ সালে দেশের স্বাধীনতার জন্য জীবন বাজি রেখে পাকিস্তানি হানাদারদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। ছিলেন ঢাকা উত্তর মুক্তিবাহিনীর কমান্ডার। দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭২ সালের ৩১ জানুয়ারি দলেবলে বঙ্গবন্ধুর কাছে অস্ত্র সমর্পণ করেছিলেন নাসির উদ্দিন ইউসুফ। আর এইদিনই বঙ্গবন্ধু তাকে স্পর্শ করেছিলেন। যে দিনটিকে তিনি এখনো তার জীবনের স্মরণীয় ঘটনা বলে মনে রেখেছেন।

বঙ্গবন্ধু নেই ৪৩ বছর পূর্ণ হলো আজ বুধবার(১৫ আগস্ট)। বঙ্গবন্ধুর নামটি এলেই যেন একটি স্মৃতি ভাস্বর হয়ে উঠে বীরমুক্তিযোদ্ধা ও নির্মাতা নাসির উদ্দিন ইউসুফের কাছে। তাইতো আজও তিনি যখন বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কথা বলছিলেন, হাজার কথার ভিড়ে সেই অমলিন আর সুমধুর স্মৃতির কথাটিও উঠে এলো।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা উত্তর মুক্তিবাহিনীর কমান্ডার ছিলেন নাসির উদ্দিন ইউসুফ

বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুদিনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চ্যানেল আইয়ের বিশেষ অনুষ্ঠানে বুধবার দুপুরে এসেছিলেন ‘গেরিলা’ খ্যাত নির্মাতা নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু। অনুষ্ঠানে দীর্ঘক্ষণ তিনি কথা বলেন মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে। তারই এক ফাঁকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নিজের জীবনের সবচেয়ে আবেগপ্রবণ কথাটিও অকপটে বলেন তিনি।

বঙ্গবন্ধু তার চিবুক ছুঁয়েছিলেন জানিয়ে বাচ্চু বলেন, বঙ্গবন্ধুর সাথে বহুবার দেখা হয়েছে। দূর থেকে তাকে দেখেছি। সত্তরের নির্বাচনের সময় তার বাড়িতে দেখেছি, বারান্দায় দাঁড়িয়ে কথা বলতে দেখেছি। মিছিল মিটিং কতো জায়গায় তাকে দেখেছি। কিন্তু আমার জীবনের সবচেয়ে আবেগি ঘটনাটা হলো, তিনি আমাকে একবার স্পর্শ করেছিলেন!

বঙ্গবন্ধুর কাছে অস্ত্র সমর্পণের ঘটনার কথা বর্ণনা করে তিনি বলেন, এটা ১৯৭২ সালের ৩১ জানুয়ারির কথা। সেদিন ছিলো অস্ত্র সমর্পনের শেষ দিন, শেষ ঘন্টা বিকাল ৫টার সময়। স্থান ছিলো পুরাতন গণভবন। তার আগে শেখ কামাল, যিনি ছিলেন আমার বন্ধু। সে আমাকে বলেছিলো তুমি অস্ত্রটা বাবার কাছেই জমা দাও। এরকম শুনে আমিতো খুশি যে বঙ্গবন্ধু অস্ত্র নিবেন! আমিও আমার সাড়ে সাতশো সৈন্য নিয়ে গণভবনে অস্ত্র সমর্পন করতে এসেছিলাম। আমার সাথে তখন ছিলো শিল্পী শাহাবুদ্দীন, অভিনেতা রাইসুল ইসলাম আসাদ। আমরা একসাথে যুদ্ধ করেছি। আমার নেতৃত্বে তখন সাড়ে সাতশো মুক্তিযোদ্ধা একসাথে বঙ্গবন্ধুর কাছে অস্ত্র সমর্পণ করেছিলাম।

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সবচেয়ে উজ্জল স্মৃতির বর্ণনা দিয়ে ‘একাত্তরের যিশু’ খ্যাত এই নির্মাতা বলেন, অস্ত্র সমর্পণের সময় বঙ্গবন্ধু চুপ করে দাঁড়িয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের কথা শুনছিলেন। আমাদের কথা শুনে তিনি আবেগপ্রবণ হয়ে গিয়েছিলেন। এক পর্যায়ে তিনি আমাকে ডাকলেন। কাছে ডেকে প্রথম আমার কাঁধে হাত রেখেছেন, পরে চিবুকটায় হাত বুলিয়েছেন। এরকম একটা ছবিও কিন্তু আছে। ছবিটি তুলেছিলেন শফিকুল ইসলাম স্বপন। একজন বিখ্যাত ফটোগ্রাফার, সেও মুক্তিযোদ্ধা ছিলো। তার তোলা বেশ কয়েকটি ছবি আছে। আমিসহ ছবিতে শাহাবুদ্দীন, বজলু, হাকিমও আছে।