চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আবার জেলে নওয়াজ শরীফ

দুর্নীতির দায়ে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে সাত বছরের সাজা দিয়ে আবারও জেলে পাঠানো হয়েছে

বিজ্ঞাপন

সোমবার ইসলামাবাদের দুর্নীতিবিরোধী আদালত নওয়াজ শরীফের ঘোষিত সম্পদের বাইরেও অর্থ থাকায় তাকে এ কারাদণ্ড দেয়।

কোনো দুর্নীতি করেননি দাবি করা নওয়াজ শরীফকে গত জুলাই মাসে ভিন্ন ভিন্ন দুর্নীতির মামলায় জেলের সাজা দেন আদালত।

তবে দুই মাস কারাভোগের পর ইসলামাবাদ উচ্চ আদালত তার ১০ বছরের সাজা স্থগিত করে সেপ্টেম্বরে।

বিজ্ঞাপন

তিনি জেলে থাকা অবস্থাতেই জুলাইতে তার দল সাধারণ নির্বাচনে পরাজয় বরণ করে।  নির্বাচনে সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ বেশিরভাগ আসনে জয়লাভ করে।

সোমবার রায় দেয়ার সময়ে ইসলামাবাদের আদালতের চারপাশে প্রচুর নিরাপত্তা ছিলো। সাবেক ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের সমর্থকরা হুমকি দিয়েছে যদি এমন কিছু ঘটে তাহলে তারা ব্যাপক বিদ্রোহ গড়ে তুলবে এবং যদি তাদের নেতাকে জেলে পাঠানো হয় তাহলে সংসদীয় ব্যবসা চূর্ণবিচূর্ণ করা হবে।

আদালতের বাইরে অপেক্ষমান সমর্থকদের টিয়ার গ্যাস ও লাঠিচার্জ করে নিরাপত্তাকর্মীরা। শরীফ বলেন, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো রাজনৈতিকভাবে প্রভাবিত এবং এই রায়ের বিরুদ্ধেও আপিল করবেন তিনি।

অভিযোগ সম্পর্কে আদালত বলেন, সৌদি আরবে আল আজিজিয়া স্টিল মিলের মালিকানা নেওয়ার ক্ষেত্রে আয়ের উৎস সম্পর্কে কোনো কিছু প্রমাণ করতে পারেননি তিনি। তবে যুক্তরাজ্যে ফ্ল্যাগশিপ বিনিয়োগের দ্বিতীয় মামলায় কোনো প্রমাণ না থাকায় তাকে খালাস দেওয়া হয়।

তার দুই ছেলে হাসান এবং হুসেইন যারা বর্তমানে পাকিস্তানে নেই তাদের আত্মগোপনকারী হিসেবে ঘোষণা করেছেন আদালত। সোমবার আদালত চত্বরেই নওয়াজ শরীফকে আটক করা হয়।