চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে যুবরাজ

‘২২ গজে ২৫ বছর কাটানোর পর আমি পরবর্তীর সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ক্রিকেটই শিখিয়েছে এগিয়ে চলার মন্ত্র’ -জল্পনা সত্যি করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে এভাবেই অবসর ঘোষণা করলেন যুবরাজ সিং। সোমবার সংবাদ সম্মেলন করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের কথা জানান ভারতের বিশ্বকাপজয়ী এ ক্রিকেটার।

বিজ্ঞাপন

শেষ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন গত জুনে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ২০১২ সালে শেষবার দেশের হয়ে টেস্ট ম্যাচ খেলেছিলেন যুবরাজ। ২০১৯ আইপিএলেও প্রায় অবিক্রিত ছিলেন যুবি। তবে শেষমুহূর্তে তাকে কিনেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। যদিও মাত্র ৪টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পান যুবরাজ।

ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একজন যুবরাজ সিং। মারকাটারি ব্যাটিং, দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ের পাশাপাশি স্পিন বোলিংয়েও ভারতকে ম্যাচ জিতিয়েছেন। ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের সদস্য যুবরাজ ওই আসরে ৩৬২ রান ও ১৫ উইকেট নিয়ে ম্যান অফ দ্য টুর্নামেন্ট হয়েছিলেন।

বিজ্ঞাপন

২০০৭ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা ভারতীয় দলের সদস্য ছিলেন যুবি। ওই আসরেও ম্যান অফ দ্য টুর্নামেন্ট হয়েছিলেন। একদিনের ক্রিকেট ৮ হাজারের বেশি রান করা যুবরাজ ১৪টি শতরান ও ৫২টি অর্ধশতরান করেছেন।

পদ্মশ্রী ও অর্জুন পুরস্কারপ্রাপ্ত এ ক্রিকেটার ২০১১ সালে ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে মরণব্যধির সঙ্গে লড়াই করে আবার ক্রিকেট মাঠে ফিরে আসেন যুবরাজ সিং।

ভারতের রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত সংবাদ সংস্থা পিটিআই খবর দিচ্ছে, বিশ্বের বিভিন্ন টি-টুয়েন্টি লিগে খেলার অপেক্ষায় রয়েছেন যুবরাজ। তার কাছে আসা প্রস্তাব নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে যোগাযোগও করেছেন।

রোববার বিসিসিআই’র এক কর্মকর্তা পিটিআইকে জানিয়েছিলেন, ‘কানাডা, আয়ারল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডসের থেকে টি-টুয়েন্টির প্রস্তাব এসেছে যুবরাজের কাছে। এ বিষয়ে বোর্ডের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছেন তিনি।’

ভারতীয় বোর্ডের অনুমোদন ছাড়া বিশ্বের অন্য কোনো দেশের টি-টুয়েন্টিতে অংশ নিতে পারেন না ভারতীয় ক্রিকেটাররা। সম্প্রতি বোর্ডের সঙ্গে চুক্তির বিরুদ্ধে গিয়ে ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট লিগে সই করেছেন ইরফান পাঠান, যিনি এখনো ভারতের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেন। এই বিতর্কে ইতিমধ্যেই পাঠানকে নোটিশ পাঠিয়েছে বিসিসিআই।