চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আগুনের গাউনে বিয়ের কনে

বিয়ের আয়োজনে ভিন্নতা রাখতে মানুষ কি না করতে পারে! ব্যতিক্রম নন সমকামী ওই জুটিও। তারাও চেয়েছিলেন যেন তাদের বিয়ের ছবিটা সবার থেকে একটু ভিন্ন হয়। সেজন্য এতটা ঝুঁকি নিতেও দ্বিধা বোধ করেননি তারা।

বিজ্ঞাপন

৩২ বছর বয়সী এপ্রিল চই এবং ২৮ বছর বয়সী বেথানি বিরনেস বিয়ের গাঁটছড়া বাঁধেন গত ১৩ অক্টোবর লওয়ার মাউন্ট ভারননে।  সেখানে আগুন জ্বলা গাউন পরে ছবির তোলার জন্য নাটকীয় পোজ দেন তারা।

ছবিটি তোলার সময়ের একটি ভিডিও পাওয়া যায়, সেখানে দেখা যায়, গাউনের জ্বলন্ত অংশটুকু আলাদা করা সম্ভব সহজে। যদি তারা মনে করেন আগুন খুবই গরম হয়ে গেছে তাহলে যেন দ্রুত সেখান থেকে সরে যেতে পারেন সেই প্রক্রিয়াও ছিলো।

বিজ্ঞাপন

এই সমকামী যুগল তাদের বিয়ের আয়োজনটা একটু উল্টোভাবে করে। তারা বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা পূরণের আগে মাউন্ট ভারননে তাদের রিসেপশন সম্পন্ন করে।

সেই সমকামী যুগল নিজেদের বিয়ের প্রতিজ্ঞা পাঠের পরে বিয়ের মন্ডপ ছেড়ে নিচের দিকে এগিয়ে যান। তারপর জ্বলন্ত গাউন পরে ছবির জন্য পোজ দেন। ইলিনয়েসের পিওরিয়ার এপ্রিল বলেন, বিয়েতে আমার অতিথিদের একজন আমার গাউনে আগুন ধরায় আর বেথানির একজন তার গাউনে। আমরা একই সময়ে দুজন আলাদা হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আগুনের তীব্রতায় আমাকে কয়েক সেকেন্ড আগেই গাউনটি খুলে ফেলতে হয়।

গাউনের নিচে সুতির টাইট পরেছিলেন তারা নিজেদের বাঁচাতে আর চুলটা বেঁধে নিয়েছিলেন শক্ত করে। এই সমকামী যুগলের অনেক বন্ধু বিনোদন মিডিয়ায় কাজ করেন। তাই আগত অতিথিদের তালিকাতেও ছিলো তেমনই আটজন, ছিলেন আতশবাজি পোড়ান তেমন নিবন্ধিত একজন, ছিলেন চিকিৎসক। নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য এই যুগল আরো কিছু পদক্ষেপ নেন, যেমন মাটিটা ভিজিয়ে ফেলা এবং হাতে অগ্নিনির্বাপক রাখা।

তারা ধীরে পোড়ে এমন কাপড়ও যুক্ত করেন নিজেদের গাউনের সঙ্গে। ২০১৩ সালে ডেট করা শুরু করে এই যুগল এরপর এনগেজ হন ২০১৬ সালে।

এপ্রিল বলেন, কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে সেই ধরনের কোনো আশঙ্কাই আমরা রাখিনি, সেভাবেই পুরোটা পরিকল্পনা করা হয়েছে।  নৃত্যপরিচালক, নাচিয়ে ও ইঞ্জিনিয়ার এপ্রিল বলেন, ছবিগুলো দেখে স্তব্ধ হয়ে গেছি। প্রথম বুঝতে পারছিলাম না কাজটা কেমন হবে কিন্তু সত্যিই অসাধারণ হয়েছে ছবিগুলো।