চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আগস্টে রপ্তানি আয় কমেছে

২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই-আগস্ট) বাংলাদেশ ৬৭৯ কোটি ৫০ লাখ ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে। যা গত অর্থবছরের প্রথম দুই মাসের রপ্তানির চেয়ে ১৬ কোটি ৬৪ লাখ ডলার বেশি। অর্থাৎ এ ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ২ দশমিক ৫১ শতাংশ। গত অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে রপ্তানি হয়েছিল ৬৬২ কোটি ৮৬ লাখ ডলারের পণ্য।

বিজ্ঞাপন

তবে একক মাস হিসেবে চলতি অর্থবছরে জুলাই মাসের চেয়ে আগস্ট মাসে রপ্তানি আয় কমেছে। জুলাইয়ে আয় হয়েছিল ৩৫৮ কোটি ১৫ লাখ ডলার। আগস্টে ৩৭ কোটি ৮০ ডলার কমে তা দাঁড়িয়েছে ৩২১ কোটি ৩৫ লাখ ডলারে।

মঙ্গলবার প্রকাশিত রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ্ তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞাপন

ইপিবির প্রতিবেদন অনুযায়ী, জুলাই ও আগস্ট মাসে ৫৭৩ কোটি ৫১ লাখ ডলারের তৈরি পোশাক রপ্তানি হয়েছে। এর মধ্যে নিটওয়্যার ২৯১ কোটি ডলার এবং ওভেন পোশাক রপ্তানি হয়েছে ২৮২ কোটি ডলারের। গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে তৈরি পোশাক রপ্তানির পরিমাণ ৩ দশমিক ৮২ শতাংশ বেশি। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৫৫২ কোটি ডলারের তৈরি পোশাক রপ্তানি হয়েছিল। চলতি অর্থবছর পোশাক রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৩ হাজার ২৬৮ কোটি ডলার। গত অর্থবছর রপ্তানি হয়েছে ৩ হাজার ৬১ কোটি ডলারের পোশাক।

আলোচ্য দুই মাসে ১৮ কোটি ডলারের চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি হয়েছে। গত অর্থবছর একই সময়ে রপ্তানি হয়েছিল ২৪ কোটি ডলারের চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য।

এ ছাড়া চলতি অর্থবছরের জুলাই ও আগস্ট মাসে ১৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলারের কৃষিপণ্য রপ্তানি হয়েছে। যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৬৮ শতাংশ বেশি। আগের বছরে কৃষিপণ্য রাপ্তানি হয়েছিল ১০ কোটি ৫৭ লাখ ডলারের। অন্যদিকে ১৩ কোটি ৪৩ লাখ ডলারের হোম টেক্সটাইল, ১৩ কোটি ১১ লাখ ডলারের পাট ও পাটপণ্য, ৮ কোটি ৭২ লাখ ডলারের হিমায়িত খাদ্য, ৪ কোটি ৮৯ লাখ ডলারর প্রকৌশলপণ্য রপ্তানি হয়েছে ওই দুই মাসে।

এককভাবে গত আগস্ট মাসে ৩২১ কোটি ৩৫ লাখ ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। যা গত বছরের আগস্টের চেয়ে ১১ দশমিক ৭৪ শতাংশ কম। আগের বছরের আগস্ট মাসে পণ্য রপ্তানির পরিমাণ ছিল ৩৬৪ কোটি ডলার।