চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আইরিনের কণ্ঠে ফের বাউন্ডারি হাঁকানোর ইঙ্গিত!

এ বছর আমার কয়েকটি ছবি আসতেই হবে, নো ওয়ে: আইরিন

প্রথমবার কলকাতার সিনেমায় কাজ করলেন চিত্রনায়িকা আইরিন। গেল মাসে টানা শুটিং করেছেন তিনি। দেশে ফেরার পর সেখানকার শুটিং অভিজ্ঞতা ও আগামী দিনে ক্যারিয়ার নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা শেয়ার করলেন চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে।

বিজ্ঞাপন

কলকাতার নির্মাতা রাজাদিত্য বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত আইরিনের ওই ছবির নাম ‘শিবরাত্রি’। একটানা শুটিং শেষ করেছেন এই নায়িকা। দু-দেশের ইন্ডাস্ট্রির তুলনা করে আইরিন বলেন, কলকাতায় খুব আর্লি কল টাইম থাকতো। ভোর ৪ টায় উঠে তৈরি হতে হতো। একঘণ্টা জার্নি করে শুটিং স্পটে যেতাম।

ঝালদা, পুরুলিয়া অঞ্চলে একেবারে লোকালয়ের বাইরে গিয়ে শুটিং করতেন আইরিন। এমনও দেখেছেন সেখানে সভ্যতার ছোঁয়া লাগেনি। মানুষের জীবনযাত্রার মানে আধুনিকতা নেই। শুটিংয়ের ফাঁকে ওইসব মানুষদের সঙ্গে মিশে নতুন নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন আইরিন।

তিনি বলেন, কলকাতার ইন্ডাস্ট্রির টেকনিক্যালি অনেক এগিয়েছে, এটা তাদের ছবিতে কাজ করে আমার মনে হয়েছে। যেমন- আমার ফিল্ম ক্যারিয়ারে এই প্রথম লাইভ সাউন্ডে কাজ করলাম। এর আগে কখনো কাজ করিনি। আমাদের এখানে পরে ডাবিং হয়। কিন্তু আমি কাজ করেছি একটু ভিন্নভাবে। পুরো ছবিটার সাউন্ড হয়েছে লাইভ সাউন্ড। ছবিতে আমার চরিত্রের নাম অঞ্জলি। যে কিনা একজন স্বাধীনচেতা নারী। ছবিতে কাজের অভিজ্ঞতা আমার কাছে এক কথায় অসাধারণ। চিত্রনাট্য ও ভাবনা ধরে ধরে শুটিং হয়েছে।

চলচ্চিত্রের পাশাপাশি তিনটি ওয়েব সিরিজে কাজ করেছেন আইরিন। জানালেন, ওয়েব সিরিজের কাজের টেস্ট। বললেন, ওয়েব সিরিজের কাজের টেস্ট পুরোপুরি সিনেমার মতো। আমাদের দেশের এই মাধ্যমটি জনপ্রিয়তার জায়গাটা এখনও কম। রাজধানী বা কয়েকটি শহরে এর দর্শক তৈরি হয়েছে। তবে ধীরে ধীরে দর্শক বাড়ছে। বাংলাদেশে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ওয়েব সিরিজ নির্মাণ বাড়াচ্ছে।

আইরিন বলেন, একটি সিনেমা যেমন চিন্তাভাবনা নিয়ে তৈরি করতে হয় ওয়েব সিরিজও সিনেমার মতো করে তৈরি করতে হয়। সিনেস্পটের ব্যানারে আমি তিনটি ওয়েব সিরিজে কাজ করেছি। অনন্য মামুন পরিচালিত পার্টনার, ধোঁকা এবং সৈকত নাসির পরিচালিত ট্র‌্যাপ। তিনটিতেই কাজের অভিজ্ঞতা দুর্দান্ত। সিনেমা থেকে বেরিয়ে ওয়েব সিরিজ করেছি দুটোর টেস্ট খুব সিমিলার লেগেছে। ঈদের সময় সিনেস্পটের ব্যানারে ওয়েব সিরিজ প্রকাশ হতে পারে, তখন দর্শক দেখতে বুঝতে পারবেন।

সবশেষে আইরিন জানালেন, নতুন কাজের খবর। বললেন, কলকাতার আরও ছবিতে কাজের কথা আগাচ্ছে। ব্যাটে-বলে মিলে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশী। ঠিকঠাক টাইমিং হলে আবারও বাউন্ডারি হাঁকানোর ইঙ্গিত দিলেন এই নায়িকা।

এদিকে অনেকদিন ধরে বড় পর্দায় নেই আইরিনের নতুন কোনো ছবি। এমনটা কেন হচ্ছে আইরিন নিজেও বুঝতে পারছেন না! জানালেন, একটার পর একটা নিয়মিত কাজ করছেন। শুটিং হচ্ছে, শেষ হচ্ছে। কিন্তু ছবি মুক্তি কেন পাচ্ছে না, এ দায় কিছুটা হলেও প্রোডাকশন হাউজের বলে মনে করেন আইরিন।

তিনি মনে করেন, অনেকদিন ধরে ছবি মুক্তি না পাওয়া তার জন্য নেগেটিভ বিষয়। তাই এ বছর তার কয়েকটি ছবি আসতেই হবে।

আইরিন বলেন, পরিচালক, প্রযোজক, শিল্পী প্রত্যেকেই নিজেদের ছবি ধারণ করে। সুযোগ সুবিধার জায়গা থেকে নির্মাণের সঙ্গে জড়িতরা ঠিক করেন কোন সময় ছবি মুক্তি দেয়া ঠিক হবে। এরমধ্যে আমি কয়েকটি ছবি শেষ করেছি। আসলেই জানিনা মুক্তির তারিখ কবে! এটা নেতিবাচক অ্যাপ্রোচ। তবে হ্যাঁ, এ বছর কয়েকটি ছবি আমার আসতেই হবে। নো ওয়ে!

ছবি: নাহিয়ান ইমন