চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অভিবাসন ও মুসলিম বিদ্বেষ নিয়ে সু চির উদ্বেগ

অভিবাসন বিরোধী কিংবা মুসলিম বিদ্বেষ নিয়ে হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবানের সঙ্গে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের প্রধান অং সান সু চি।

সম্প্রতি হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টে অরবানের সঙ্গে বৈঠকে এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বৈঠক শেষে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘দুই নেতাই দৃষ্টিগোচরে এনেছেন যে, উভয় দেশ ও তাদের সংশ্লিষ্ট অঞ্চল-দক্ষিণপূর্ব এশিয়া ও ইউরোপের জন্য সবচেয়ে বড় মোকাবেলার বিষয়গুলের মধ্যে রয়েছে অভিবাসন। তারা উল্লেখ করেছেন যে উভয় অঞ্চলেই অব্যাহতভাবে ক্রমবর্ধমান মুসলিম জনগোষ্ঠির সঙ্গে সহাবস্থানের বিকাশ দেখা যাচ্ছে।’

অভিবাসন বিষয়ে সু চি ও অরবানের রেকর্ড খুবই খারাপ। ২০১৫ সালে সু চি ক্ষমতায় আসার পর এক বছরের মাথায় মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বাড়তে থাক। সেনাবাহিনীর অভিযানের পর প্রাণ বাঁচাতে সেখান থেকে সাত লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে পালিয়ে আসে।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়া কিংবা সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেননি সুচি। উল্টো রাখাইনে ‘রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী’দের বিরুদ্ধে এই সেনা অভিযান বলেও জানান সু চি।

অন্যদিকে হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী অরবান ২০১৫ সালে অভিবাসীদের ঠেকাতে দেশে ‘জরুরি অবস্থা’ জারি করেছিলেন।