চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অবশেষে ডিআইজি মিজানের দুঃখ প্রকাশ

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

আয়কর নথির বাইরে তার কোনো সম্পদ নেই বলে তিনি দাবি করলেও দুদক সচিব জানিয়েছেন, যাচাই-বাছাই করে অভিযোগের সত্যতার ভিত্তিতেই ডিআইজি মিজানকে ডাকা হয়েছে।

এছাড়া ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনারের দায়িত্ব পালনের সময় নারী নির্যাতনের অভিযোগ উঠে ডিআইজি মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে। গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে তাকে ডিএমপি থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত করে অভিযোগের তদন্ত শুরু করে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স।

পুলিশের নিজস্ব তদন্ত চলার সময় ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে যে তিনি নামে বেনামে প্রায় শত কোটি টাকা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ গড়েছেন।

এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে ১০ই ফেব্রুয়ারি তদন্তের সিদ্ধান্ত নেয় দুর্নীতি দমন কমিশন। দুদকে ডেকে পাঠানো হয় ডিআইজি মিজানকে।

পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী সকাল সাড়ে নয়টায় মিজানুর রহমান দুদকে হাজির হলে তাকে প্রায় সাত ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেন অনুসন্ধান কর্মকর্তা দুদকের উপ পরিচালক ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারি। পরে গণমাধ্যমের কাছে অবৈধ সম্পদের কথা অস্বীকার করলেও এক সংবাদ পাঠিকার সঙ্গে অসদাচরণের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।

দুদক সচিবের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, যাদেরই আয়কর নথির বাইরে স্বজনের নামে সম্পদের প্রমাণ পাওয়া যাবে, তাদেরই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আগামী ৬ই মে ডিআইজি মিজানকে ২য় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করার কথা জানিয়েছে দুদক। ডিঅাইজি মিজানকে প্রথম দফা জিজ্ঞাসাবাদের দিন অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ থেকে নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুকে দায়মুক্তি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন।

বিস্তারিত দেখুন ভিডিও রিপোর্টে:

FacebookTwitterInstagramPinterestLinkedInGoogle+YoutubeRedditDribbbleBehanceGithubCodePenEmail