চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অনুদান কমিটি থেকে পদত্যাগ: কারণ জানালো তথ্য মন্ত্রণালয়

২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে চলচ্চিত্রে অনুদান সংক্রান্ত জটিলতা, চার সদস্যের পদত্যাগ বিষয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কথা বলবেন নাসির উদ্দিন ইউসুফসহ বাকি তিন সদস্যরা…

২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের চলচ্চিত্র অনুদান নিয়ে বিতর্ক যেন থামছেই না। গেল ২৪ এপ্রিল অনুদান ঘোষণার পরই অনিয়মের অভিযোগ এনে চলচ্চিত্রের চূড়ান্ত অনুদান কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন নাট্য ব্যক্তিত্ব ও অভিনেতা মামুনুর রশিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও নির্মাতা নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম ও চলচ্চিত্র নির্মাতা ও সমালোচক মতিন রহমান।

বিজ্ঞাপন

প্রভাবশালী এই চার সদস্যের পদত্যাগের পর চলচ্চিত্র অঙ্গনে আলোচনার প্রধান বিষয় হয়ে দাঁড়ায় চলতি অর্থ বছরের চলচ্চিত্র অনুদান। এমন ঘটনায় বুধবার (১ মে) বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করলো তথ্য মন্ত্রণালয়।

গণমাধ্যমে পাঠানো তথ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মীর আকরাম উদ্দীন আহম্মদের স্বাক্ষরিত একটি বিবৃতিতে বলা হয়: ‘‘চলতি অর্থ বছরের অনুদানপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রের মধ্যে চলচ্চিত্র জগতের কিংবদন্তি সারাহ বেগম কবরীর ‘এই তুমি সেই তুমি’ এবং একুশে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ ও প্রখ্যাত অভিনয়শিল্পী ড.ইনামুল হকের ‘১৯৭১-সেইসব দিন’ দুটি চলচ্চিত্রের বিষয়ে ১১ সদস্যের অনুদান কমিটির চারজন (সদ্য পদত্যাগী) অজানা কারণে ক্রমাগতভাবে অসম্মতি প্রকাশ করে আসছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখা এবং চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বতের অবদান রাখার সুযোগ দেবার লক্ষ্যে কমিটির সর্বসম্মতিক্রমে সুপারিশকৃত সব ক’টি চলচ্চিত্রের সাথে উল্লেখিত দুটি চলচ্চিত্রও অনুদানের আওতায় আনা হয়। যার সাথে অনুদান কমিটির সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যবৃন্দ সহমত পোষণ করেন। এ বিষয়ে বিভ্রান্তির কোনো অবকাশ নেই।’’

এদিকে অনুদান কমিটি থেকে পদত্যাগের কারণ জানিয়ে চার প্রভাবশালী সদস্যরা গত ২৮ এপ্রিল তথ্যমন্ত্রী বরাবর লিখিত পদত্যাগপত্র পাঠান।

চিঠিতে পদত্যাগের বিস্তারিত কারণ উল্লেখ করেন। চারজনের স্বাক্ষরিত ওই পদত্যাগ পত্রে বলা হয়: ‘‘৭ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে আপনার (তথ্যমন্ত্রী) সভাপতিত্বে এবং সচিব মহোদয়ের উপস্থিতিতে ২০১৮-১৯ সালের জন্য গঠিত চলচ্চিত্র অনুদান কমিটির সভায় ২টি পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র ও একটি শিশুতোষসহ ৫টি পূর্ণদৈর্ঘ্য কাহিনীচিত্রকে অনুদান দেওয়ার বিষয়ে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু আমরা বিস্ময়ের সঙ্গে লক্ষ্য করলাম যে, অনুদান কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কোনো রকম আলোচনা না করে সম্পূর্ণভাবে মন্ত্রণালয়ের একক সিদ্ধান্তে সেই সভার সিদ্ধান্তকে পরিবর্তন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। অনুদান কমিটির সদস্য হিসেবে আমাদের আগেও কাজ করার সুযোগ হয়েছে, কিন্তু এ ধরনের দুঃখজনক অভিজ্ঞতা আর কখনো হয়নি।

এমতাবস্থায় অনুদান কমিটির সদস্য হিসেবে থাকা আমাদের জন্য সম্মানজনক ও যুক্তিযুক্ত মনে না হওয়ায় আমরা চলচ্চিত্র অনুদান কমিটি থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। অতএব, এই পত্রটিকে আমাদের পদত্যাগপত্র হিসেবে গণ্য করে তা অবিলম্বে কার্যকর করার জন্য আপনাকে অনুরোধ জানাচ্ছি।’’

তথ্য মন্ত্রণালয়ের এমন বক্তব্যের পর নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর সাথে যোগাযোগ করলে বুধবার সন্ধ্যায় তিনি চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, এ বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চাইছি না। আগামিকাল (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় সবার সামনে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে।

এরআগে অনুদান কমিটি থেকে পদত্যাগের কারণ জানিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় চ্যানেল আই অনলাইনকে মামুনুর রশীদ জানিয়েছিলেন, পৃথিবীর যে কোনো পুরস্কার বা অনুদান বিতর্কের উর্দ্ধে নয়। কিন্তু আমরা যারা অনুদান কমিটিতে আছি তারা সব সময় আমাদের বিবেকের কাছে পরিচ্ছন্ন থাকার চেষ্টা করি। আর এ কারণে পদত্যাগের সিদ্ধান্তকেই আমরা ঠিক মনে করেছি।