চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘অতিমানব’ কোহলির রেকর্ড গড়া শতকেও ভারতের হার

প্রথম ম্যাচে তার শতকে হেসেখেলেই জয় পেয়েছিল ভারত। দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য ড্র করে দল। ‘অতিমানব’ বিরাট কোহলি শতকের দেখা পেলেন তৃতীয় ম্যাচেও। তবে দুই ম্যাচের সঙ্গে এই ম্যাচের পার্থক্য হলো যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এবার হার এড়াতে পারলো না দল।

বিজ্ঞাপন

পুনেতে তৃতীয় ওয়ানডেতে কোহলির ১০৭ রানের ইনিংস সত্ত্বেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ৪৪ রানে হেরে গেছে ভারত। এই ম্যাচ জিতে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে নিজেদের সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখল ক্যারিবীয়রা। সিরিজে এখন ১-১ সমতা।

প্রথমে ব্যাট করে দ্বিতীয় ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান শাই হোপসের ৯৫ আর অ্যাশলি নার্সের ২২ বলে ৪০ রানের ঝড়ে ২৮৩ রানের শক্ত সংগ্রহই গড়ে ক্যারিবীয়রা। শেষদিকে নার্স ঝড় তুললেও তাদের ভিতটা দাঁড়ানো মূলত হোপসের ইনিংসটিতে ভর করে। ৬ চার আর ৩ ছয়ে ১১৩ বল খেলে যখন টানা দ্বিতীয় শতকের দিকে একটু করে এগোচ্ছিলেন হোপস, তখনই জসপ্রীত বুমরাহের বলে বোল্ড।

বিজ্ঞাপন

মৃত্যু আরেকটি শতকের সম্ভাবনার। যদিও দল জয় পাওয়ায় সে কষ্ট না থাকারই কথা ক্যারিবীয় উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের। হোপস ফিরলে রানের চাকা ধরে রাখেন নার্স, তার ইনিংসটিতে চারের মার ৪টি আর ছয় ২টি।

২৮৪ রানের জবাবে শুরুতেই ৮ রান করা রোহিত শর্মাকে ফিরে গেলেও হাল ধরেন শিখর ধাওয়ান ও কোহলি। ৮৮ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৩৫ রানে ধাওয়ান ফিরলে বাকি ব্যাটসম্যানরা খুব একটা সঙ্গ দিতে পারেননি অধিনায়ককে।

অন্যপ্রান্তে সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মিছিলে নিজের ৩৮ ও সিরিজে টানা তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন কোহলি। প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টানা তৃতীয় শতক হাঁকানোর কীর্তি গড়লেন ভারত কাপ্তান। ১১৭ বলে ১০ চার ও ১ ছয়ে সাজানো কোহলির ১০৭ রানের ইনিংসটি। কোহলির ওপরে কেবল লঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা। ২০১৫ বিশ্বকাপে হাঁকিয়েছিলেন টানা চার শতক!

মারলন স্যামুয়েলসের বলে কোহলি বোল্ড হয়ে ফিরলে আর খুব একটা বড় হয়নি ভারতের ইনিংস। লক্ষ্য থেকে ৪৩ রান দূরে থাকতে ২৪০ রানেই থামে তাদের দৌড়।